চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির নতুন দাম্পত্য নিয়ে এই সব কি বললেনঃ সাবেক স্বামী অ’পু

ঢাকাই সিনেমা’র জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। সিনেমা থেকে শুরু করে নিজের ব্যক্তি জীবন; সবকিছু নিয়েই বর্তমানে বেশ আলোচনায় রয়েছেন। আজ দ্বিতীয় বিয়ে করেছেন বলে নিজেই জানিয়েছেন ফেসবুকে।

তিনি তার ফেসবুক আইডি থেকে বিয়ের একটি ছবি পোস্ট করে লেখেন, ‘আলহাম’দুলিল্লাহ। আজ ১৩/০৯/২১ ইং ১২.০৫ মি. আমাদের বিবাহ সম্পন্ন হলো। এর আগের সব কথা আসলেই গুজব ছিলো। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন এটাই একমাত্র চাওয়া।’

কবিরাজ: তপন দেব,সাধনা ঔষধালয় । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

ডিভোর্স হয়ে গেলেও সাবেক স্বামী পারভেজ মাহমুদ অ’পুর সঙ্গে বেশ ভালো বন্ধুত্ব রয়েছে দাবি করতেন মাহি। সেই অ’পু এবার তার প্রাক্তন সঙ্গীকে নতুন দাম্পত্য জীবনের জন্য শুভকামনা জানালেন।

অ’পু জাগো নিউজ বলেন, ‘মাহির বিয়ের খবরটি অনেকদিন ধরেই শুনছি। আজ সকালে মাহির ফেসবুকে ছবি ও পোস্ট দেখে আমিও আপনাদের মতো নিশ্চিত হয়েছি। ও নতুন সংসার শুরু করেছে জেনে খুব ভালো লাগছে। তার জন্য শুভকামনা। আমা’র চাওয়া, নতুন সংসারে মাহি সবসময় ভালো থাকুক।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি রাকিবকে আগে থেকেই চিনি। মাহি আমা’র সঙ্গে তার বন্ধু হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিয়েছিল। তার এক ছে’লে ও এক মে’য়ে আছে আমি জানি। সে আমাদের সঙ্গে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতেও গিয়েছে।

সে আমা’র থেকে অনেক ভালো ছে’লে। আমি রাকিব ও মাহির জন্য দোয়া করি যেনো
তারা অনেক সুুখী হয়।’

সমালোচনা হচ্ছে রাকিবের সঙ্গে স’ম্পর্কের হাত ধরেই নাকি মাহির সঙ্গে আপনার বিচ্ছেদ। এটা কতটুকু সত্যি? এমন প্রশ্নের জবাবে অ’পু বলেন, ‘এটা মি’থ্যে। আমি খুব সাধারণ মানুষ ভাই। সাধারণভাবেই জীবন-যাপন করতে চাই। আমা’র পরিবারের মান সম্মান অনেক বড়। যেটা হয়ে গেছে তা নিয়ে কথা বলতে মান সম্মানে আ’ঘাত আনতে চাই না। এ ব্যাপারে আমি আর কথা বলতে আগ্রহী নই।’

২০১৬ সালে সিলেটের ব্যবসায়ী পারভেজ মাহমুদ অ’পুকে ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন মাহিয়া মাহি। বিয়ের পাঁচ বছর পর চলতি বছরে তাদের বিবাহবিচ্ছেদ হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *