আমার স্বপ্নপূরণ হলো, পরীমনিকে ছুঁতে পেরে মুদি দোকানি জিল্লুরের।

বুধবার সকাল ৯টার দিকে কারাগার থেকে মুক্ত হন চিত্রনায়িকা পরীমনি। কারাগার থেকে বের হওয়ার পর নায়িকাকে নেওয়ার জন্য উপস্থিত ছিলেন তার খালু মোহাম্মদ জসিম উদ্দিনসহ পরিবারের একাধিক সদস্য। নায়িকা কারাগার থেকে বের হওয়ার সময় উৎসুক জনতা তাকে দেখার জন্য কারাফটকে ভিড় করে। তাদেরই একজন মুদি দোকান জিল্লুর রহমান।

কাশিমপুর কারাগারের সামনেই জিল্লুর মুদি দোকান। পরীকে যেদিন কাশিমপুর কারাগারে নেয়া হয় সেদিন তাকে এক নজর দেখার চেষ্টা করেছিলেন জিল্লুর। কিন্তু সুযোগ মেলেনি। তার সেই স্বপ্ন পূরণ হলো আজ। শুধু দেখা নয়, নায়িকার হাতে হাত মেলাতে পেরেছেন জিল্লুর রহমান।

একটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জিল্লুর বরাতে বলা হয়েছে, আমি পরীমনির ভক্ত। তিনি জেলখানায় আসার পর থেকেই আকাঙ্ক্ষা ছিল তাকে দেখব। এত মানুষের মাঝে তাকে দেখতে পেরে মনে হয়েছে আকাশের চাঁদ হাতের কাছে এসেছে। বাস্তবে দেখে অনেক বেশি ভালো লেগেছে, যেটা ভাষায় বোঝানো যাবে না। আজ আমি তার কাছাকাছি গিয়ে তার সঙ্গে হাত মেলাতে পেরেছি।

এ জন্য আমি নিজেকে অনেক ধন্য মনে করছি। নিজের পরিচয় জানিয়ে জিল্লুর বলেন, আমি কারাগারের সামনের স্থানীয় দোকানদার। সেই হিসেবে কারাগারে সব সময় যাওয়া-আসা আছে, কারাগারের সঙ্গে আমি সম্পৃক্ত। উল্লেখ্য, গত ৪ আগস্ট রাতে রাজধানীর বনানীর বাসায় প্রায় ৪ ঘণ্টা অভিযান চালিয়ে পরীমনি ও তার সহযোগীকে গ্রেফতার করে র‍্যাব।

কবিরাজ: তপন দেব,সাধনা ঔষধালয় । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

তার বাসা থেকে বিভিন্ন ধরনের মাদকদ্রব্য জব্দ করা হয় বলে জানানো হয়। গ্রেফতারের পর তাদের নেওয়া হয় র‍্যাব সদর দফতরে। পরে র‍্যাব-১ বাদী হয়ে মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে পরীমনির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। ওই দিনই একই সূত্র ধরে অভিযান চালিয়ে পরিচালক নজরুল ইসলাম রাজকে গ্রেফতার করা হয়েছিল।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *