নায়িকা পরীমনির সেই হেরেমখানায় যারা যেতেন

এরা ফূর্তি করার জায়গা—হেরেমখানা, জলসাঘর, বাইজীঘর কিংবা রংমহল নামেও পরিচিত। এককালে রাজা-বাদশারা এসব জায়গায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা বুঁদ হয়ে থাকলেও, বর্তমান অনেক চিত্রনায়িকার কাছে এসব ‘সাধারণ’ বিষয়। ঢাকাই চলচ্চিত্রের নায়িকা পরীমনির বাসায় ছিল ছোটখাটো এক হেরেমখানা’।

কবিরাজ: তপন দেব,সাধনা ঔষধালয় । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

ঢাকার বনানী ১৯/এ সড়কের ১২ নম্বর বাড়ির পাঁচতলাতে থাকেন চিত্রনায়িকা পরীমনি। পাঁচতলার এ ফ্ল্যাটটি নামীদামী মদের বোতলে ঘেরা ও বারের আদলে সাজানো। জানা গেছে এই বাসাতেই নিয়মিত মদের আসর বসাতেন তিনি। চলত পার্টি ও গান-বাজনা।

সূত্র মতে, এখন পর্যন্ত ১০ জন শিল্পপতি, পাঁচজন ব্যবসায়ী, একজন ব্যাংকের কর্ণধারসহ ১৭-১৮ জনের একটি সিন্ডিকেট পাওয়া গেছে, যারা নিয়মিত এসব পার্টিতে যেতেন।

পরীমনির বাসার ড্রইংরুমে ঢুকতেই হাতের বাম পাশে দেখা যাবে কাচঘেরা বিশাল ঘর। এ ঘরেই তাকে সাজানো সারি সারি বিদেশি ব্রান্ডের মদের বোতল। আবার কিছু বোতল কাত করে শুইয়ে রাখা হয়েছে। ছোট ছোট টেবিলের উপরও রাখা আছে মদের বোতল। আর মদ খাওয়ার জন্য রয়েছে বিভিন্ন ডিজাইনের গ্লাস।

ঢাকায় যারা পরীমনিসহ এই সিন্ডিকেটের পার্টি কালচারের সঙ্গে জড়িত, তাদের মধ্যে অনেকে দুবাই, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়ায় পার্টিতে অংশ নিতেন। অনেক সময় ধনাঢ্য পরিবারের বখে যাওয়া সন্তানরা এসব মডেলকে নিয়ে বিদেশে যেতেন। আবার অনেক সময় বিদেশি নাগরিকদের আমন্ত্রণে একটি সিন্ডিকেট বাংলাদেশ থেকে তাদের আমন্ত্রণ জানিয়ে দেশের বাইরে নিতেন।

সূত্র বলছে, সিনেমা শুটিংয়ের আড়ালে পরী মূলত প্রভাবশালীদের ঘনিষ্ঠ হতেই বেশি পছন্দ করতেন। পরী ধূমপানে অভ্যস্ত (চেইন স্মোকার)। তার ফ্ল্যাটে বিদেশি সিগারেট ও মদের বিশাল সংগ্রহ রয়েছে। বলা যায় ছোটখাটো বার। তার ফ্ল্যাট থেকে রাশিয়ান ভদকা, জিন, টাকিলা, হুইস্কি ও বহু মূল্যবান রেড ওয়াইন উদ্ধার করা হয়েছে।

সূত্র বলছে, কয়েকটি ব্যাংকে পরীর মোটা অঙ্কের টাকা রয়েছে। যার বেশিরভাগই তিনি পেয়েছেন শুভাকাঙ্ক্ষীদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার সুবাদে। টাকার নেশা তাকে ছাড়ে না। পরী তার ঘনিষ্ঠ মডেলদের মাধ্যমে একটি চক্র গড়ে তোলেন। তাদের মাধ্যমে অনেকে ব্ল্যাকমেইলিংয়ের শিকার হন।

কবিরাজ: তপন দেব,সাধনা ঔষধালয় । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

বুধবার বিকেলে পরীমনির বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব। এ সময় তার বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মদ, ভয়ংকর মাদক আইস, এলএসডি ও মাদক সেবনের সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়। এখন দেখার বিষয় কী সাজা অপেক্ষা করছে অভিনেত্রী পরীমণি ও তার সহযোগীদের জন্য।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *