করোনাকালে আমরা মদ খাই না: হেলেনা জাহাঙ্গীরের মেয়ে

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসা থেকে উ’দ্ধার হওয়া ম’দ তার নয় বরং তার ছেলের এবং করোনাকালে তারা ম’দ খায়নি বলেও দাবি করেছেন বহিষ্কৃত আওয়ামী লীগ উপকমিটির সদস্যর কন্যা জেসি আলম। তার দাবি অহেতুক তার মাকে হয়রানি করা হচ্ছে। তার বাসা থেকে জব্দ হওয়া হরিণের চামড়াটি উপহার হিসেবে পাওয়া। বিদেশি মুদ্রাগু’লোও অবৈধ নয়।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) দিবাগত রাতে গু’লশান-২ এর ৩৬ নম্বর রোডের ৫ নম্বর বাসা থেকে হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আট’কের পর এ দাবি করেন তার মেয়ে। এর আগে, অ’ভিযানে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসা থেকে আমর’া বিদেশি ম’দ, অবৈধ ওয়াকিটকি সেট, ক্যাসিনো সরঞ্জাম, বিদেশি মুদ্রা, চাকু ও হরিণের চামড়া জব্দ করে র‍্যাব’।

বিদেশি ম’দ প্রসঙ্গে জেসি আলম বলেন, আমর’া ম’দ খাই না। করোনাকালে আমর’া অ্যাল’কোহল খাইনি। ম’দের কালেকশন আমা’র ভাইয়ের। এগু’লো রাখার লাইসেন্সও তার ছিল। সেই লাইসেন্সও তারা (র‍্যাব’) নিয়ে গেছে।সাংবাদিকরা হরিণের চামড়ার বি’ষয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, এটি একটি উপহার। মায়ের নেত্রীরা আমা’র ভাইয়ের বিয়ের সময় এটি উপহার দিয়েছিলেন।

বিদেশি মুদ্রার বি’ষয়ে জেসি আলম বলেন, আমর’া প্রায় সময়ই বিদেশে যাতায়াত করি। অনেক দেশে আমর’া ভ্রমণ করতে যাই। আমা’দের সবার পাসপোর্টও আছে। ফিরে আসার পর সেগু’লো বেঁচে গেলে আমর’া কি ফেলে দেব নাকি?

ক্যাসিনো সরঞ্জাম সম্পর্কে তিনি বলেন, একটা ক্যাসিনো করতে অনেক সরঞ্জাম লাগে যা আমা’দের এখানে ছিল না। আমা’দের এখানে তাস ছিল যা আমর’া বন্ধুদের সঙ্গে খেলতাম। হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আট’কের বি’ষয়ে জেসি আলম বলেন, র‍্যাব’ের কাছে কোনো ওয়ারেন্ট ছিল না। তারা আমা’দের সহযোগিতা করেনি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *