প্রবাসী ব’ন্ধুদের এই ঘটনা থেকে শিক্ষা নিতে হবে।

এইটা কোন ধ’রনের অমানবিকতা । তোদের মতো মানুষ নামের অমানুষ গুলারে দে’খতে মন চাইতেছে
ছেলেটির নাম রাশেদ । জ’ন্ম ১৯৮৪ সালে ।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

মাস্কাটে তিন বছর আগে বিল্ডিং রং ক’রতে গিয়ে উঁচু বিল্ডিং থেকে প’ড়ে পুরো শ’রীর এমনই ফ্র্যাকচারড হয়েছে যে জানে বেঁ’চে গিয়েছে। কিন্তু প্যারালাইজড ।

শুধুমাত্র মাঝে মাঝে চোখ’টা খু’লে নির্বিকার তাকিয়ে থাকে। আবার চোখ ব’ন্ধ করে।কথা ব’ন্ধ।ছেলেটি এভাবেই তিন বছর ধ’রে মাস্কাটে হসপিটালে চি’কিৎসাধীন অবস্হায় প’ড়ে ছিলো। সে কোম্পানিতে কাজ করতো, তারা খরচ বহন করেছে।উনাকে ফে’লে দেয়নি।

কিন্তু দুঃ’খজ’নক ব্যপার হলো উনার পরিবা’রের সাথে তার কোম্পানি থেকে ক’য়েকবার যোগাযোগ করেও তারা তাকে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে ব্য’র্থ হয়েছে।পঙ্গু ছেলে তারা ফিরিয়ে নিতে অস্বীকৃতি জা’নিয়েছে।তার ভার তারা নেবেনা।তাকে যেন দেশে পা’ঠানো না হয়।

ধ’রে নিলাম তারা দরি’দ্র।দায়িত্ব নিতে চায়না। তারপরেও তাদের এই সন্তান যদি সুস্হ থাকতো, কাঁড়ি কাঁড়ি রিয়াল পাঠাতো, তাহলে কিন্তু এরাই তাকে পুজা করতো, মাথায় তুলে রাখতো।বিষয়টা আমা’র কাছে অত্যন্ত অমানবিক মনে হয়েছে।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

আহারে জীবন। রাশেদ যে হসপিটালে চি’কিৎসাধীন ছিলেন সেই হসপিটালের বাংলাদেশি ডক্টররা, ওমানে বাংলাদেশ দূতাবাস, যে কোম্পানিতে ক’র্মরত ছিলেন এবং বাংলাদেশ সরকারের সহায়তায় তাকে আজকে দেশে আনা হয়েছে। সরাসরি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

প্রবাসী রাশেদকে গত ২৪ তারিখ দিবাগত রাতের বি’মান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে বিশেষ ব্যব’স্থায় দেশে আনা হয়েছে। সেই বিমান যাকে আপনারা বেঈমান বলেন।

মাস্কাট-ঢাকা ফ্লাইটে তাকে স্পেশাল হ্যান্ডলিং এর মাধ্যমে আনা হয়েছে। প্রবাসী ব’ন্ধুরা, এটা দেখে শিক্ষা নিন, নিজে’র জন্য কিছু করুন। বি’পদে কেউ কারো না।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *