ঈদের দিন চাঁদপুরে বিভিন্ন স্থানে কোরবানির গরুর গোশতে আল্লাহ্‌র নাম!

কোরবানির পশু জ’বাইয়ের পর তাতে চোখে পড়ল মহান আল্লাহ্‌র নাম। তবে এমন অলৌকিক দৃশ্য শুধু এক জায়গায় নয়, বেশ কয়েকটি স্থানে। ঈদের দিন চাঁদপুরের বিভিন্ন স্থানে কোরবানির গরুর গোশতের টুকরোতে এমন আল্লাহ্’র লেখা ভেসে ওঠেছে। এমন অলৌকিক ঘটনা চোখে পড়েছে বুধবার (২১ জুলাই) পবিত্র ঈদুল আজহার দিন।

চাঁদপুর শহরের নাজিরপাড়া, পুরানবাজার ও সদর উপজেলার সফরমালীসহ বেশ কিছু স্থানে কোরবানির গোশতের টুকরোতে আল্লাহু নাম উপস্থিত লোকজনের চোখে ধ’রা পড়ে। আর এমন অলৌকিক দৃশ্য দেখার খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকার মানুষজন পশু কোরবানি দেওয়া ব্যক্তির বাড়িতে আল্লাহ্’র নাম লেখা দেখতে ভিড় জামায়।

এছাড়া এমন দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অনেকেই আল্লাহ্ লেখার ছবি দিয়ে পোস্ট করতে দেখা গেছে। চাঁদপুর শহরের পুরান বাজার এলাকার ওমর’ ফারুক বলেন, কোরবানির জন্য আমর’া একটি গরু জ’বাই করি। পরে গরুর গোশত কা’টাকাটি শেষে হঠাৎ একটি টুকরোতে আল্লাহ্ নাম দেখা যাচ্ছিল। আমর’া গোশতের টুকরোটি হাতে নিয়ে ভালো করে দেখে নিশ্চিত হই এবং সত্যি গোশতে মধ্যে আল্লাহ্ নাম।

এমন দৃশ্য দেখার পর মহান আল্লাহ্’র কাছে শুকরিয়া যে, আমা’দের কোরবানির গোশতে আল্লাহ্ নাম পাওয়া গেছে। সদর উপজেলার সফরমালী এলাকার মো. ইকরাম হোসেন বলেন, প্রতিবছরই আমর’া কোরবানি দেই। কিন্তু এবার কোরবানির গোশতের টুকরোতে আল্লাহ্ লেখা ভেসে উঠেছে। খবরটি জানাজানি হলে অনেকেই বাড়িতে ভিড় জমায়।

আমর’া সেই গোশতের টুকরো হেফাজতে রেখেছি। চাঁদপুর বি’ষ্ণুদী ইসলামিয়া সিনিয়র মা’দরাসার আরবি বিভাগের প্রভাষক মাওলানা আবু জাফর মো. মোজাম্মেল হক বলেন, পৃথিবীতে যুগে যুগে মহান আল্লাহ তায়ালা মানুষকে বিভিন্নভাবে হেদায়েত করে থাকেন।

কবিরাজ: তপন দেব,সাধনা ঔষধালয় । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

তারই একটি অংশ কোরবানির গোশতে আল্লাহর নাম। পবিত্র কোরআন শরীফেও বিভিন্নভাবে এ কথা উল্লেখ রয়েছে। তিনি আরো বলেন, শুধু যে কোরবানির কোশতে আল্লাহর নাম ভেসে উঠে তা নয়, কবুতর, মাছ, গাছ, পানিসহ আল্লাহর তৈরি কতকিছুর মধ্যেই না আল্লাহ্’র নাম ভেসে উঠে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *