এবার বাজার থেকে নয়, ঘরেই তৈরি করুন নিমের সাবান

বাজারে যে নানা রকম নিম সাবান পাওয়া যায়, সেগুলোতে কতটা সত্যিকারের নিম বা নিমের গুনাগুণ থাকে বলুন তো? সত্যি বলতে কি, থাকে না মোটেও। তাই ঘরেই তৈরি ক’রতে পারেন এই নিমের সাবান। এটা তৈরি কিন্তু খুবই সহজ। তাছাড়া খুব কম উপকরণ দিয়ে তৈরি করা যায় এই সাবান।

আপনার ঘরে থাকা সাধারণ সামগ্রী আর কয়েকটা নিম পাতা হলেই তৈরি করে ফেলা সম্ভব দারুণ একখানা নিম সাবান। এই সাবান মুখসহ স’ম্পূর্ণ শ’রীরে ব্যবহার ক’রতে পারবেন। জা’নেন তো, নিম সাবান ব্রণের স’মস্যা ও ফুসকুড়ি দূ’র করে ত্বককে করে তোলে নিখুঁত ও দাগহীন।

শ’রীরের যেকোন খোস-পাঁচড়ার স’মস্যাও দূ’র করে দেবে এই সাবান। চলুন তবে জে’নে নেয়া যাক ঘরে কীভাবে নিমের সাবান তৈরি করবেন সে স’ম্পর্কে-

উপকরণ: নিম পাতার রস আধা টেবিল চামচ, নিম এসেনশিয়াল অয়েল কয়েক ফোঁটা, লেবুর রস কয়েক ফোঁটা, অলিভ অয়েল এক টেবিল চামচ, সোপ বেজ আধা কাপ।

যদি সোপ বেজ খুঁজে না পান, তাহলে গ্লিসারিন বেজ বা যেকোনো সাবান নিলেই হবে। ঘরোয়া সাবান তৈরির জন্য বিদেশী ‘পিয়ারস’ সাবানটি ভালো। এটি ব্যবহার করলেই চলবে নিম সাবান তৈরির ক্ষেত্রে।

প্রণালী: প্রথমে নিম পাতা ভালো করে বেটে নিন কোনো পানি ছাড়া। এরপর নিমের রসটুকু খুব ভালো করে ছেঁকে নিন। আমাদের কয়েক টেবিল চামচ ঘন নিমের রস হলেই চলবে। একটি হাঁড়িতে পানি নিয়ে তার উপর একটি প’রিষ্কার কাঁচের বাটি দিয়ে দিন। এটাকে বলে ডাবল ব্রয়লার।

যেভাবে চকলেট গলানো হয়, ঠিক সেভাবেই এই সাবানটি গলিয়ে নিন। সোপ বেজ বা সোপ সরাসরি আ’গুনের তাপে না দিয়ে এভাবে গলিয়ে নিলেই বেশি সুবিধা। কাঁচের বা সিরামিকের বাটি ব্যবহার করুন। স্টিল ও প্লাস্টিকের বাটি এড়িয়ে চলুন।

সোপ বেজ বা সাবান একটি প’রিষ্কার গ্রেটার দিয়ে ভালো করে গ্রেট করে নিন এবং হাঁড়ির উপরে বসানো বাটিতে দিয়ে দিন। একটি কাঠের চামচ দিয়ে আস্তে আস্তে নেড়ে গলিয়ে নিন। সোপ বেজ স’ম্পূর্ণ গলে গেলে তাপ থেকে সরিয়ে নিন এবং দ্রুত অন্যান্য উপাদানগুলো মিশিয়ে দিন। ওপরে একটু ফেনার মতো উঠলে সেটা চামচ দিয়ে ফে’লে দিন।

আপনার পছন্দ মতো যেকোনো ছাঁচে আগে থেকেই অলিভ অয়েল মেখে রাখু’ন। সমস্ত উপাদান মেশানো সোপ বেজ সেই ছাঁচে ঢেলে দিন। ঠান্ডা হতে দিন। ২৪ ঘণ্টা শেষ হবার আগেই দেখবেন তৈরি আপনার নিম সাবান। ছাঁচ থেকে বের করে সাধারণ সাবানের মতো ব্যবহার করুন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *