সম্প্রতি মাটির মটকায় দাঁড়িয়ে ছিল ৩০০ বছরের পুরনো ভবন

চট্টগ্রাম নগরের কোতোয়ালি থানার পাথরঘাটা নজু মিয়া লেন এলাকায় মাটি খুঁড়ে মিলেছে পুরনো বেশকিছু মাটির মটকা। এসব মটকার ওপরই ৩০০ বছর দাঁড়িয়ে ছিল হাজার বর্গফুটের একটি দোতলা ভবন।

জানা গেছে, চট্টগ্রামের বনেদি ব্যবসায়ী শরিয়ত উল্লাহ ৩শ’ বছর আগে মিয়ানমারের রেঙ্গুন থেকে সারবোঝাই জাহাজে করে মটকাগুলো এনেছিলেন। পরবর্তীতে সেগুলো মাটিতে পুঁতে এর ওপর ইট, চুন ও সুরকি দিয়ে ভবনটি তৈরি করেন। মটকার ওপর ছিল ২২ ইঞ্চি ইট-সুকির আস্তর। ভবনের দেয়ালও ২২ ইঞ্চি পুরু। এছাড়া ঘরের মাঝখানে ছিল একটি কুয়া।

সেই কুয়াতে এখনো রয়েছে বিশুদ্ধ পানির ধারা। সম্প্রতি সংস্কারের জন্য ভবনটি ভাঙার উদ্যোগ নেয়া হয়। ভাঙার পরই মাটি খুঁড়ে গত দুদিনে ২৪টি মটকা পাওয়া যায় বলে জানান শরিয়ত উল্লাহর বংশধর মোহাম্মদ আবুল মনসুর।

কবিরাজ: তপন দেব,সাধনা ঔষধালয় । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

বিষয়টি জানাজানি হলে ভবনটি পরিদর্শন করেন চুয়েটের সাবেক ভিসি ও চট্টগ্রাম ওয়াসার চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. জাহাঙ্গীর আলম এবং চট্টগ্রাম ইতিহাস সংস্কৃতি গবেষণা কেন্দ্রের চেয়ারম্যান আলীউর রহমানসহ বেশ কয়েকজন।

পরিদর্শন শেষে ড. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ভূমিকম্প ও জলোচ্ছ্বাস থেকে রক্ষা পেতে তখনকার সময়ে মাটির মটকাগুলো ব্যবহার করা হতো। তবে দীর্ঘ ৩শ’ বছর হাজার টন ওজনের একটি ভবন কীভাবে মাটির মটকা ধারণ করল তা পরীক্ষা ও গবেষণা করে নিশ্চিত হওয়া যাবে।
ভূমিকম্প ও জলোচ্ছ্বাস থেকে রক্ষা পেতে তখনকার সময়ে মাটির মটকাগুলো ব্যবহার করা হতো।

আলীউর রহমান বলেন, ৩শ’ বছরের পুরনো মটকাগুলো এখন প্রত্নসম্পদ হিসেবে বিবেচিত হবে। ২০১৫ সালের প্রত্ন আইনে স্থাবর সম্পত্তি ১শ’ বছর ও অস্থাবর সম্পত্তি ৭৫ বছরের পুরনো হলে তা প্রত্নসম্পদ হিসেবে বিবেচিত হবে। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে এগুলো আগ্রাবাদ জাতিতাত্ত্বিক জাদুঘরে সংরক্ষণে পদক্ষেপ নেয়া হবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *