সম্প্রতি সন্তানরা উঠানে বাবার ম’র’দেহ রেখে জমি ভাগাভাগিতে ব্যস্ত

বাড়ির উঠানে বাবার ম’র’দে’হ রেখেই সম্পত্তির ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে দ্ব’ন্দ্বে লি’প্ত ৫ হয়েছেন সন্তানরা। এমনকি সম্পত্তির সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত লা’শ দা’ফ’নেও বা’ধা দেন তারা। ২২ ঘণ্টা ধরে খোলা আকাশের নিচে পড়ে থাকলো মৃ’’ত’দে’হ। রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলায় এই ঘটনা ঘটে।

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার এ ঘটনায় অবশেষে আজ বুধবার (৭ জুলাই) দুপুরে সন্তানদের দ্ব’ন্দ্ব মেটানোর আশ্বা’স দিয়ে মৃ’’ত’দে’হ দা’ফ’ন করা হয়েছে। উপজেলার দেবগ্রাম ইউনিয়নের দক্ষিণ পাঁচুরিয়া গ্রামে মঙ্গলবার (৬ জুলাই) ‘বিকেলে মা’রা যান ইয়াছিন’ মোল্লা (৮৫)।

বাড়ির উঠানেই পড়ে ছিল তার মৃ’’ত’দে’হ। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এবং গণ্যমান্যরা দফায় দফায় সালিশের মাধ্যমে সন্তানরা লা’শ দা’ফ’নের সি’দ্ধান্তে উপনীত হন। কিন্তু ততক্ষণে খবর পেয়ে থা’না থেকে পুলিশ এসে ম’য়’নাত’দ’ন্তের জন্য লা’শটি থা’নায় নিয়ে যায়।

বৃ’দ্ধের সন্তানদের এমন কীর্তিতে ‘হতবাক হয়ে গেছেন স্থানীয়রা। বি’ষয়টি নিয়ে এলাকায় ব্যাপক তো’লপা’ড় সৃ’ষ্টি হয়েছে। মর’্মান্তিক এ ঘটনাটি ঘটেছে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দেবগ্রাম ইউনিয়নের দক্ষিণ চর পাঁচুরিয়ার অম্বলপুর গ্রামে।

মৃ’’ত ব্যক্তির নাম ইয়াছিন’ মোল্লা (৮৫)। তার ২টি ছেলে ও ৩টি মেয়ে রয়েছে। কিন্তু ইয়াসিন মোল্লা ইতোপূর্বে তার বসতবাড়ি ও মাঠের জমিজমাসহ মোট ৬০ শতাংশ জমি তার ছোট ছেলের নামে লিখে দেন। স্থানীয়রা জানান, জমি-জমা সংক্রা’ন্ত বি’রো’ধের জের ধরে

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

ইয়াছিন’ মোল্লার ৫ সন্তানের মধ্যে বড় ছেলে বাবলু মোল্লা, ফুলবড়ু বেগম, রাবেয়া বেগম ও মমতাজ বেগমের সঙ্গে ছোট ছেলে রহমান মোল্লার দীর্ঘদিন ধরে বি’রো’ধ চলে আসছিল। বি’রো’ধের কারণে রহমান বাড়িতেও টিকতে পারেননি। তিনি গোয়ালন্দ পৌর এলাকায় ভাড়া বাড়িতে থাকতেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *