আজকাল এটিএম বুথ থেকে সুরক্ষিত উপায়ে টাকা তুলবেন যেভাবে

সময় আর শ্রম বাঁচাতে আজকাল টাকা তুলতে মানুষ ব্যাংকে খুব কমই ভিড় জমান। সহজে টাকা তোলার জন্য সবার ভরসা এখন এটিএম বুথ। তাছাড়া করোনার কারণে ব্যাংকে যাওয়াও নিরাপদ নয়। তাই সবাই বুথ থেকেই টাকা তুলতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন।
তবে বুথ থেকে টাকা তুলতে গেলে কিছু বিড়ম্বনারও শিকার হতে হয়।

তাই এটিএম বুথ ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু বিষয় মাথায় রাখা জরুরি। তবেই এটিএম বুথ ব্যবহার সংক্রান্ত বিড়ম্বনা অনেকাংশেই এড়ানো সম্ভব। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক তেমন কিছু বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত-

ব্যস্ত এলাকায় থাকা এটিএম বুথ থেকে টাকা তুলুন।

যখন লোকজনের ভিড় থাকবে, সেই সময়ে এটিএম-এ টাকা তুলবেন।

এটিএম-এ ঢোকার সময় ভালো করে খেয়াল করুন। কোনোভাবে কিছু সন্দেহজনক লাগলে টাকা তোলার কাজ বাতিল করুন।

এটিএম মেশিনে পিন দেয়ার আগে নিশ্চিত হোন, আশপাশে কেউ নেই। পারলে যতটা আড়াল করে পিন নম্বর দেয়া যায় সেটাই করুন।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

টাকা ওঠানোর আগে এটিএম মেশিনটি ভালো করে দেখে নিন। অনেক সময় প্রতারকরা কার্ড হোল্ডারের জায়গায় নকল প্যানেল বসিয়ে রাখে। এতে কার্ডের নম্বর সেই প্যানেলে উঠে যায়। অনেক সময় টাকা বের হওয়ার জায়গায় পাতলা কার্ড ঢুকিয়ে রাখা হয়। এতে টাকা তুললেও তা বাইরে আসে না।

আপনি বিরক্ত হয়ে বেরিয়ে গেলে সেই পাতলা পাত সরিয়ে টাকা বের করে নেয় দুষ্কৃতিকারীরা। আবার অনেক সময় প্রতারকরা এটিএম-এর ভেতরে ক্যামেরা রাখে, যাতে আপনার এটিএম পিন নম্বর রেকর্ড করা যায়।

এটিএম-এ কোনো অপরিচিত ব্যক্তির সাহায্য নেবেন না। সাহায্য চাওয়ার আগে বোঝার চেষ্টা করুন লোকটার মতিগতি। আগ বাড়িয়ে সাহায্য করতে আসা লোককে এড়িয়ে চলুন। এটিএম-এ কোনো সাহায্যের দরকার হলে সেখানে থাকা নিরাপত্তারক্ষীর সাহায্য নিন।

কার্ড এটিএম-এ ফেলে রেখে আসবেন না। এটিএম মেশিনে কার্ড আটকে গেলে হতাশ হয়ে বাইরে বের হবেন না। নিরাপত্তারক্ষীর সাহায্য নিন অথবা ব্যাংকের কাস্টমার কেয়ার-এ ফোন করে বিষয়টি জানান।

ট্রানজাকশনের পরে রিসিট নিতে ভুলবেন না। যতক্ষণ না পর্যন্ত নিজের ট্রানজাকশন ঠিক হয়েছে বলে মন থেকে নিশ্চিত হতে পারছেন, ততক্ষণ পর্যন্ত রিসিটটি সঙ্গে রাখুন। আমাদের অভ্যাসই আছে, ট্রানজাকশন শেষে রিসিট এটিএম-এর ডাস্টবিনে ফেলে দিই। এটা না করাই বাঞ্ছনীয়।

এটিএমে ঢোকার পরে পারলে দরজা বন্ধ করে দিন। অনেক সময়ে খোলা দরজা দিয়ে সন্তর্পণে এটিএম-এ ঢুকে যায় দুর্বৃত্তরা। আক্রমণ করে বসে গ্রাহককে। এমন বহু ঘটনা ঘটেছে।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

টাকা তুলেই এটিএম-এ গুণতে শুরু করবেন না। বরং একটা নিরাপদ স্থানে এসে টাকাটা গুনে নিন। কোনো ভুল থাকলে সঙ্গে সঙ্গে ব্যাংকের কাস্টমার সেকশনে অভিযোগ দায়ের করুন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *