এক শিশু গৃহকর্মীর স্পর্শকাতর জায়গাতে নির্যাতন করতেন স্বামী ও অ্যাডভোকেট স্ত্রী

রাজধানীর তোপখানা রোডে এক শিশু গৃহকর্মীকে নি’র্যা’তনের অ’ভিযোগে গৃহক’র্তা তান‌ভির আহসান ও তার স্ত্রী অ্যাড‌ভো‌কেট না‌হিদকে আট’ক করেছে পুলিশ। বি’ষয়টি নিশ্চিত করেছেন শাহাবাগ থা’নার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মওদুত হাওলাদার।

জানা গেছে, নি’র্যা’তনের শি’কার গৃহকর্মীর নাম সুইটি (১২)। তার বাড়ি কিশোরগঞ্জের মিঠামইন থা’নার নবাবপুর থা’নায়। অভাবের তাড়নায় দরিদ্র বাবা-মা ভিকটিমকে রাজধানীর তোপখানা রো‌ডে একটি বাসায় গৃহকর্মীর কাজে দিতে বাধ্য হয়েছে। এখানে সে ৯ মাস ধরে কাজ করছিল। প্রায় প্রতিদিনই তাকে নানা অজুহাতে গৃহক’র্তা ও গৃহক’র্ত্রী উভয়ই মা’রধর করে।

একপর্যায়ে শনিবার (৩ জুলাই) মেয়েটিকে নি’র্যা’তনে আঘা’তের চিহ্নসহ কিছু ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেন এক প্রতিবেশী। ছবিগু’লো পোস্ট দিয়ে তিনি দ্রুত সহযোগিতা ও আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানান তিনি। পরে জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর-৯৯৯ এ ফোন করে ডাকা হয় পুলিশ।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী সুইটি বলেন, আমাকে প্রতিনিয়ত তারা মা’রধর করতেন। কাজে কোনো সমস্যা হলেই গরম খু’ন্তি দিয়ে ছ্যাঁকা দিতো। মাঝে মাঝে কা’টা জায়গায় মর’িচের গু’ড়ো দিয়ে দিতো। আমাকে ৩ দিন ধরে বাথরুমে আট’কে রেখে মা’রধর করছে তারা। কান্নাকাটি করলে আরও বেশি মা’রতো।

এ ঘটনায় ক্ষু’ব্ধ এলাকাবাসী জানান, দীর্ঘদিন ধরেই শিশুটিকে বাসায় আট’কে রেখে চলছিল পাশ’বিক নি’র্যা’তন। শিশুটিকে রুটি বেলার বেলুন দিয়ে প্রহার করা ‘হতো। সেই বেলুন দিয়েই যোনিপথে মধ্য’যুগীয় কায়দায় করা ‘হতো নি’র্যা’তন।

এ বি’ষয়ে পুলিশ সদরদফতরে এআইজি (মি‌ডিয়া অ্যান্ড পাব‌লিক রি‌লেশন্স) মো. সোহেল রানা বলেন, ছবিতে মেয়েটির চোখের নিচে আঘা’তের চিহ্ন। হাতে গু’রুতর জ’খম এবং অ’পর একটি ছবিতে মেয়েটির পশ্চাৎ দেশে উভয়পাশে আগু’নে পোড়া ঘা চোখে পড়ে।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

এই পোস্টটি একজন গণমাধ্যম কর্মী বাংলাদেশ পুলিশের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স উইংকে পাঠিয়ে দ্রুত সহযোগিতা প্র’ত্যাশা করেন। বি’ষয়টি পুলিশের নজরে আসার মাত্র এক ঘণ্টার মধ্যে ভিকটিমকে উ’দ্ধার ও অ’ভিযুক্তদের আট’ক করা হয়েছে। অ’ভিযুক্ত‌দের বিরু’দ্ধে আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *