Categories
Uncategorized

সেহরি খাওয়ার পর নার’কীয় তা’ণ্ডব, জ্বালিয়ে দেওয়া হল ২৬ বাড়ি

কক্সবাজারের চকরিয়ায় মাতামুহুরী নদীতে জেগে ওঠা চরের (ভরাট চর) দখল নিতে বৃহস্পতিবার (১৪ মে) ভোররাতে সেহরি খাওয়ার পর সশস্ত্র একদল গ্রামবাসী একটি পাড়ায় নার’কীয় তা’ণ্ডব চালায়। এ সময় অন্তত ২৬টি বসতবাড়িতে আ’গুন দিয়ে পু’ড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। লু’ট করে নেওয়া হয়েছে নগদ টাকা, গবাদি পশু, মূল্যবান মালামালসহ অন্তত কোটি টাকার সম্পদ। এই তা’ণ্ডবে আগুনে পুড়ে মা’রা গেছেন পঞ্চাশোর্ধ্ব এক নারী। গুলিবিদ্ধ ও ধারালো অ’স্ত্রের কোপে আহত হয়েছেন অন্তত ২০ জন। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গুরুতর আহত কয়েকজনকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। গ্রামবাসী জানায়, তাণ্ডবের সময় ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা অন্তত ৫০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। ওই পাড়াটির নাম খিলছাদক।

আগুনে পুড়ে মারা যাওয়া নারীর নাম মনোয়ারা বেগম (৫৫)। তিনি মোজাহের আহমদের দ্বিতীয় স্ত্রী। আহতদের মধ্যে যাঁদের নাম পাওয়া গেছে তাঁরা হলেন—মোজাহের আহমদ (৭০), সাজ্জাদ হোসেন (২৫), মো. মুরাদ (২৩), আবু ছালেক (৪২), নবীর হোছাইন (৫০), মো. বাবলু (২২) ও আলম (৪৫)।

খিলছাদক পাড়াবাসীর অভিযোগ, দীর্ঘ কয়েক যুগ ধরে তাঁদের ওই পাড়ার বিশাল অংশ মাতামুহুরী নদীর ভাঙনে বিলীন হয়ে যায়। তবে কয়েক বছর ধরে নদীতে তলিয়ে যাওয়া সেই জায়গা ফের জেগে ওঠে। যাদের জায়গা জেগে উঠে তারা সেই জায়গায় বসতি গড়ে তোলে। কিন্তু নদীর পার্শ্ববর্তী ইউনিয়ন বরইতলীর গোবিন্দপুর গ্রামের সশস্ত্র লোকজন সেখানে এসে বারবার জেগে ওঠা জায়গা দখলের চেষ্টা চালায়। সব শেষ গতকাল ভোররাতে নারকীয় তাণ্ডব চালিয়ে খিলছাদকপাড়ার অন্তত ২৬টি বসতবাড়িতে আগুন লাগিয়ে দিয়ে লুটপাট চালায়। এ ঘটনায় বাড়িগুলো পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এ সময় কোটি টাকার মালামাল লুট ছাড়াও কয়েক কোটি টাকার সম্পদের ক্ষতি করে তারা।

নারকীয় এই তাণ্ডবের খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান কক্সবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য জাফর আলম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ শামসুল তাবরীজ, ওসি হাবিবুর রহমান, উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা মো. সাইফুল হাছান, হারবাং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর আমিনুল ইসলাম, এসআই অপু বড়ুয়া, বরইতলী ও কৈয়ারবিল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জালাল আহমদ সিকদার ও মক্কী ইকবাল হোসেন।

ওসি হাবিবুর রহমান জানান, কৈয়ারবিলের খিলছাদক অংশে মাতামুহুরী নদীতে জেগে ওঠা চরের দখল নিতে এই নারকীয় তাণ্ডব চালায় পাশের ইউনিয়নের একদল গ্রামবাসী। যারা এই তাণ্ডবের সঙ্গে জড়িত তাদের শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ শামসুল তাবরীজ বলেন, ‘অমানবিক এই ধ্বংসযজ্ঞে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর তালিকা করে জমা দিতে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এসব পরিবারকে সরকারি সহায়তা দিয়ে পুনর্বাসন করা হবে। এ ছাড়া প্রাথমিকভাবে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পরিবারগুলোকে সহায়তা দেওয়া হবে। ঘটনায় জড়িতদের খুঁজে বের করে কঠোর শাস্তির আওতায় আনা হবে।’

কক্সবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য জাফর আলম বলেন, ‘ক্ষতিগ্রস্ত ২৬টি পরিবারকে প্রাথমিকভাবে এক বস্তা করে চাল, চার বান্ডিল করে ঢেউটিন দেওয়া হয়েছে। যাতে তাদের খাদ্য ও বাসস্থান নিশ্চিত হয়। আর যারা এই নারকীয় তাণ্ডবের সঙ্গে জড়িত তাদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনতে পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

Categories
Uncategorized

পশ্চিম তীর নিয়ে এবার ইসরাইলকে তী’ব্র হুঁ’শিয়ারি পাকিস্তানের

অধিকৃত পশ্চিম তীর ইসরাইলের সংযুক্তকরণের পরিক’ল্পনায় ইসরাইলের বি’রু’দ্ধে তী’ব্র বিরো’ধিতা করে হুঁ’শিয়ারি দিয়েছে পাকিস্তান। দেশটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ইসরাইলের এমন কাজ ওই অঞ্চলে শান্তি ও নিরা’পত্তার জন্য হু’মকি হবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সাপ্তাহিক প্রেস ব্রিফিংয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আয়েশা ফারুকি বলেন, অধি’কৃত ফিলিস্তিনি অঞ্চলে যে কোনো সংযো’জন আন্তর্জাতিক আইনের মা’রা’ত্মক ল’ঙ্ঘ’ন। ইতিমধ্যে অঞ্চলটিতে অ’স্থির পরি’স্থিতির ঝুঁ’কি বাড়িয়ে তুলছে। তিনি বলেন, পশ্চিম তীর ও জর্ডান উপত্যাকা ফিলিস্তিনি অঞ্চল। ১৯৬৭ সাল থেকে ইসরাইল অবৈ’ধভাবে দ’খল করে আছে।

ফিলিস্তিনি ইস্যু নিয়ে জাতিসংঘ ও ওআইসির অবস্থানকে সমর্থন করে পাকিস্তান। এ সময় তিনি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ফিলিস্তিনিদের অধিকার নিয়ে সমর্থনেরও আহ্বান জানান। জাতিসংঘের নিরা’পত্তা কাউন্সিল ও সাধারণ পরিষদের রেজুলেশন অনুযায়ী দুই দেশের মধ্যে সমঝোতাকে পাকিস্তান সমর্থন করে বলেও তিনি উল্লেখ করেছেন।

Categories
Uncategorized

মসজিদে যেতে মানা করা হয়নি, প্রতিটি ঘরকে মসজিদ বানাতে বলা হয়েছে’

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের নানা দেশের মসজিদগুলো বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ভারতজুড়ে লকডাউন চলছে। এমন অবস্থায় দেশটিতে বসবাসরত মুসুল্লিদের মসজিদে না গিয়ে ঘরেই নামাজ আদায় করার আহ্বান জানানো হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। করোনার প্রকোপে বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে নিয়েছেন ভারত জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার ইরফান পাঠান।

ক্যারিয়ারে ২৯ টেস্টে ১০০ উইকেট, ১২০ ওয়ানডেতে ১৭৩ উইকেট ও ২৪ টি-টোয়েন্টি খেলে ২৮ উইকেট রয়েছে এই পেস অলরাউন্ডারের। তিন ফরম্যাট মিলিয়ে ২ হাজার ৮২১ রানও রয়েছে তার নামের পাশে। নিজের ফেসবুকে একটি ভি’ডিও পোস্ট করেছেন ইরফান। সবাইকে নিজ নিজ বাসস্থানে নামাজ আদায়ের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

সাবেক এই তারকা অলরাউন্ডার বলেন, ‘মসজিদে যেতে মানা করা হয়নি এটা না ভেবে, ভাবুন প্রতিটা ঘরকে মসজিদ বানাতে বলা হয়েছে। আমাদের মতো আমাদের ঘরও গুনাহগার হয়েছে। আসুন নিজেদের ঘর পরিষ্কার রেখে ঘরেই নামাজ আদায় করি।’

Categories
Uncategorized

পেঁয়াজের দাম কমেছে ১৫ টাকা

দফায় দফায় কমছে পেঁয়াজের দাম। মাত্র ২ দিনের ব্যবধানে রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজিতে কমেছে ৫ টাকা। আর মাসের ব্যবধানে কমেছে ১৫ টাকা পর্যন্ত। শুক্রবার রাজধানীর বিভিন্ন খুচরা বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ভালো মানের দেশি পেঁয়াজের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০- ৪৫ টাকা, এক সপ্তাহ আগে ছিল ৪৫-৫০ টাকা। আর এক মাস আগে ছিল ৫০-৫৫ টাকা।

অ’পরদিকে আম’দানি করা পেঁয়াজের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩৫-৪০ টাকা, যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ৪০-৪৫ টাকা এবং এক মাস আগে ছিল ৫০-৫৫ টাকা।’ পেঁয়াজের এ দাম কমা’র তথ্য সরকারি প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) প্রতিবেদনেও উঠে এসেছে। টিসিবির হিসাবে, দেশি পেঁয়াজের দাম সপ্তাহে ও মাসের ব্যবধানে কমেছে ১০ দশমিক ৫৩ শতাংশ।

আর আম’দানি করা পেঁয়াজের দাম মাসের ব্যবধানে কমেছে ১৯ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ। ব্যবসায়ীরা বলছেন, রোজার এক সপ্তাহ পর থেকেই পেঁয়াজের দাম কমছে। রোজার শুরুতে পেঁয়াজের কেজি ৫৫ টাকা হয়েছিল। এরপর তা কয়েক দফা কমে এখন ৪০ টাকা হয়েছে। আমাদের হিসাবে রোজার মধ্যেই পেঁয়াজের কেজি ১৫ টাকা কমেছে।

Categories
Uncategorized

ভ্যাকসিন পাওয়া যাক বা না যাক, পৃথিবী বদলে যাবে : ট্রুডো

করো’নাভাই’রাসের ভ্যাকসিন একদিন না একদিন হয়তো ঠিকই পাওয়া যাবে। মহামা’রির দিনও একদিন হয়তো শেষ হবে। কিন্তু তাই বলে পৃথিবী আর কোনোদিনই আগের জায়গায় ফিরবে না। এমন মন্তব্য করেছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। তিনি দেশটির নাগরিকদের নতুন পৃথিবীর সাথে নিজেদের মানিয়ে নিতে এবং নিজেদের অভ্যাসের পরিবর্তনগুলো গ্রহণ করার আহবান জানিয়েছেন।

করো’নাভাই’রাস পরিস্থিতির কারণে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত খাতে ৩৩৪ মিলিয়ন ডলারের প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন ট্রুডো। এই অর্থ দেশটির মৎস্য খাত ও ন্যাশনাল পার্ক পুনরায় খোলার জন্য ব্যায় করা হবে বলে জানিয়েছে দেশটির একটি সংবাদ মাধ্যম। তিনি বলেন, “আমাদের এটা স্বীকার করতে হবে ভ্যাকসিন পাওয়া গেলেও এবং মহামা’রি শেষ হলেও পৃথিবী বদলে যাবে। কোভিড-নাইনটিন এমন এক বিষয় যা আমাদের সমাজ পরবির্তন করে দিবে। সব কিছুর সাথে আমাদের মানিয়ে নিতে হবে।”

সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার জরুরি পরিস্থিতি বিশেষজ্ঞ মাইক রায়ান বলেছেন যে করো’নাভাই’রাস এইচআইভির মতো স্থায়ী এক রোগ হিসেবে পৃথিবীতে থেকে যাবে। তিনি আশ’ঙ্কা প্রকাশ করে বলেছেন, এই রোগ হয়তো কোনোদিনই পৃথিবী থেকে চলে যাবে না। এ দিকে কানাডার বিভিন্ন রাজ্যে লকডাউন শিথিল করা হচ্ছে। এ ছাড়া গ্রীষ্মের গরমের কারণে বহু লোক বাড়ির বাইরে আসা শুরু করেছে।

কানাডার সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ অঞ্চল অন্তারিওতে ১৯ মে থেকে দোকানপাট, গাড়ি ব্যবসা এবং নির্মাণাধীন ভবনের কর্মকা’ণ্ড পুনরায় শুরু করা যাবে। অঞ্চলটির অর্থনৈতিক কর্মকা’ণ্ডে গতি প্রদানের উদ্দেশ্যে গ্রহণ করা তিনটি ধাপের একটি হলো এই উদ্যোগ। কানাডার সরকারি স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য মতে, দেশটিতে করো’নাভাই’রাসে আ’ক্রান্ত ও মৃ’ত্যুর হার কমে এসেছে। দেশটিতে করো’নাভাই’রাসে মা’রা যাওয়া ৬০ শতাংশের বেশি মানুষ ছিলেন ক্যুবেক অঞ্চলের বাসিন্দা।

Categories
Uncategorized

করো’নাভাই’রাস সংক্রমণের কারণে শি’শুদের শরীরে দেখা দিচ্ছে নতুন এক রোগ

করো’নাভাই’রাস সংক্রমণের কারণে শি’শুদের শরীরে দেখা দিচ্ছে নতুন এক রোগ। চিকিৎসকরা বলছেন, শরীরের প্রতিরোধক ব্যবস্থা সক্রিয় হয়ে ওঠার কারণে সম্ভবত এই উপসর্গ দেখা দিচ্ছে। এটা খুবই বিরল একটি রোগ যার নাম কাওয়াসাকি ডিজিজ শক সিনড্রম। শরীরে আকস্মিক একটা আক্রমণের প্রতিক্রিয়ায় এই উপসর্গ প্রকাশ পায়। এরই মধ্যে ব্রিটেন ও যু’ক্তরাষ্ট্রে বেশ কিছু শি’শু বিরল এই প্রদাহ’জনিত রোগে শিকার হয়েছে। সবচেয়ে অ’বাক করা বিষয় হলো, এই প্রদাহ’জনিত রোগের সঙ্গে করো’নাভাই’রাসের যোগাযোগ রয়েছে।

কিছু শি’শুর ক্ষেত্রে রোগটি মা’রাত্মক জটিলতা সৃষ্টি করেছে। অনেক শি’শুকে ইনটেনসিভ কেয়ারেও রাখতে হয়েছে। শুধু ব্রিটেনেই এমন উপসর্গে আ’ক্রান্ত হয়েছে ১০০ শি’শু। জানা গেছে, ইউরোপের অন্যান্য দেশেও শি’শুদের মধ্যেও একই ধরনের উপসর্গ দেখা গেছে। গত এপ্রিল মাসেই ব্রিটিশ ডাক্তাররা সতর্ক করে দেয়, শি’শুদের মধ্যে বিরল ও বিপজ্জনক প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। এরপর লন্ডনে আট শি’শু অ’সুস্থ হয়ে পড়ে, এর মধ্যে ১৪ বছরের একজন এই রোগে মা’রা যায়।

শি’শুদের ক্ষেত্রে করো’না সংক্রমণের নতুন ধারা! এসব শি’শুদের বেশিরভাগই সাধারণ কয়েকটি উপসর্গ নিয়ে লন্ডনের এভেলিনা চিলড্রেনস হাসপাতা’লে ভর্তি হয়। তাদের সবারই প্রচণ্ড জ্বর, ত্বকে রেশ, লাল চোখ, শরীর ফুলে যাওয়া এবং ব্যথার উপসর্গ ছিল। এদের কারো ফুসফুস বা শ্বা’স-প্রশ্বা’সের সমস্যা দেখা দেয়নি। চিকিৎসকরা বলছেন, সংক্রমণের নতুন একটা ধারা। এর সঙ্গে মিল আছে কাওয়াসাকি শক সিনড্রমের।

এই প্রতিক্রিয়া একটা বিরল রোগ উপসর্গ, যা প্রধানত দেখা যায় পাঁচ বছরের কম বয়সীদের মধ্যে। এসব উপসর্গের মধ্যে রয়েছে রেশ, ঘাড়ের গ্রন্থিগুলো ফুলে ওঠা এবং ঠোঁট শুষ্ক হয়ে ফেটে যাওয়া। তবে এই নতুন উপসর্গ দেখা গেছে শি’শু থেকে ১৬ বছর পর্যন্ত বয়সীদের ক্ষেত্রেও। এদের মধ্যে অনেকের কঠিন জটিলতা তৈরি হয়েছে। লন্ডনের ইম্পিরিয়াল কলেজের শি’শু সংক্রামক রোগ ও রোগ প্রতিরোধ বিষয়ক বিভাগের ড. লিজ হুইটেকার বলছেন।

মহামা’রির এই সময় শি’শুদের মধ্যে এমন উপসর্গ দেখা দেয়ার কারণে অ’ভিভাবকরা ভাবছেন করো’নাভাই’রাসের সঙ্গে এর যোগাযোগ রয়েছে। রোগ ও শি’শু স্বাস্থ্য বিষয়ক রয়্যাল কলেজের প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক রাসেল ভাইনার বলছেন, যেসব শি’শু এই রোগের শিকার হয়েছে, তাদের বেশিরভাগই চিকিৎসায় ভালো হয়ে উঠছে। যদিও এই উপসর্গগুলো ব্যতিক্রমী ও বিরল। ইম্পিরিয়াল কলেজেরই আরেকজন বিশেষজ্ঞ বলছেন, যেসব শি’শুদের পরীক্ষা করা হয়েছে তাদের মধ্যে বেশিরভাগেরই নেগেটিভ ফল এসেছে।

তবে অ্যান্টিবডি পরীক্ষায় তাদের শরীরে ভাই’রাসের বি’রুদ্ধে অ্যান্টিবডি ধ’রা পড়েছে। চিকিৎসকরা স’ন্দেহ করছেন ভাই’রাসের আক্রমণ থেকে শরীরে যে অস্বাভাবিক প্রতিরোধ ব্যবস্থা সক্রিয় হয়ে ওঠে তার থেকে এই উপসর্গ দেখা দিতে পারে। তবে এ ব্যাপারে আরো গবেষণার প্রয়োজন আছে। কারণ নতুন এই উপসর্গের কথা জানা গেছে মাত্র তিন সপ্তাহ আগে।

শি’শুদের মধ্যে একই ধরনের উপসর্গ দেখা গেছে আ’মেরিকা, স্পেন, ইতালি, ফ্রান্স ও নেদারল্যান্ডসে। নিউইয়র্কের গর্ভনর অ্যান্ড্রু কুয়োমো বলছেন, যু’ক্তরাষ্ট্রের অন্তত ১৫টি রাজ্যে শি’শুদের এই রোগ উপসর্গ দেখা গেছে।

Categories
Uncategorized

১৭ লাখ টাকায় মুশফিকের ব্যাট কিনলেন শহীদ আফ্রিদি

অবশেষে নিলামে বিক্রি হলো মুশফিকুর রহিমের সেই ঐতিহাসিক ব্যাট। সবাইকে চমকে দিয়ে নিলাম থেকে ব্যাটটি ২০ হাজার মার্কিন ডলার বা বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৭ লাখ টাকায় কিনে নিয়েছে পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদির প্রতিষ্ঠিত ‘শহীদ আফ্রিদি ফাউন্ডেশ’। এই ব্যাট দিয়ে বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরিটি করেছিলেন মুশফিক। এই অর্থ করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় ব্যয় করা হবে। ছয়দিন ব্যাপী নিলাম শেষ হয় বৃহস্পতিবার (১৪ মে) রাত ১৪টায়। তবে চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করা হয় শুক্রবার (১৫ মে) রাত সাড়ে ৯টার দিকে।

অনলাইন প্লাটফর্ম ‘স্পোর্টস ফর লাইফ’ এর ফেসবুক পেজে লাইভের মাধ্যমে মুশফিকের ব্যাটের নিলামের বিজয়ী নাম ঘোষণা করেন। মুশফিক লাইভে উপস্থিত থেকে নিলামে বিজয়ীর নাম ঘোষনা করেন। মুশফিকের ব্যাটটির ভিত্তিমূল্য ছিল ৬ লাখ টাকা। নিলামের প্রথমদিনেই অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে গিয়েছিল ব্যাটটির দাম। সে সময় প্রায় ৪০ লাখ টাকার কাছাকাছি দাম উঠেছিল বলে শোনা গেলেও পরে জানা যায়, ওই ডাক ছিল ভুয়া। এজন্য সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয় নিলাম প্রক্রিয়া।

বাংলাদেশের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানের ব্যাটটি নিলামে তুলেছিল নিবকো স্পোর্টস ম্যানেজমেন্টের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ‘স্পোর্টস ফর লাইভ’। উদ্যোগটি যৌথভাবে পরিচালনা করছে নিবকো স্পোর্টস ম্যানেজমেন্ট, ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ‘পিকাবো’ ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাক। ফেসবুক লাইভে চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণার পর তার অত্যন্ত প্রিয় ব্যাটটি কিনে নেওয়ায় আফ্রিদি ও তার ফাউন্ডেশনকে ধন্যবাদ জানান মুশফিক।

Categories
Uncategorized

সকালে করোনামুক্ত ঘোষণার পর সন্ধ্যায় মারা গেলেন শাহ আলম

শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার জমাদ্দারকান্দি গ্রামের শাহ আলম জমাদ্দার (৮৭) নামে এক ব্যক্তিকে সকালে করোনামুক্ত ঘোষণা করার পর ওইদিন সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয় বলে জানা গেছে। তিনি হৃদরোগ ও কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন। গত এপ্রিলে তিনি ঢাকায় চিকিৎসা নিতে যান। ২৩ এপ্রিল সেখানে তার করোনা শনাক্ত হয়। এরপর তিনি বাড়ি ফিরে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। বৃহস্পতিবার (১৪ মে) সকালে তাকে করোনামুক্ত ঘোষণা করা হয়। কিন্তু সন্ধ্যায় তিনি মারা যান।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মাহামুদুল হাসান বলেন, সকালে প্রশাসনের সব পর্যায়ের কর্মকর্তারা শাহ আলম জমাদ্দারের বাড়ি গিয়ে তাকে করোনামুক্ত হওয়ার খবর দিই। তখন তিনি ও তার পরিবারের সদস্যরা অনেক আনন্দিত হয়েছিলেন। বিকেলে হঠাৎ তার অসুস্থ হওয়ার খবর শুনে চিকিৎসক নিয়ে তার বাড়ি যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। এমন সময় সন্ধ্যা সাতটার দিকে ফোনে জানতে পারি, তিনি মারা গেছেন। মাহামুদুল হাসান আরও বলেন, তার পরপর দুবার করোনা পরীক্ষার প্রতিবেদন নেগেটিভ আসায় মৃত্যুর পর শাহ আলমের আর পরীক্ষা করা হয়নি। তাকে স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, ২৩ এপ্রিল শাহ আলমের করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। বাড়ি ফিরে তার সংস্পর্শে আসা আটজনের করোনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে তার স্ত্রী ফতেজা বিবির (৭৫) করোনা শনাক্ত হয়। তাদের বাড়িতে আলাদা (আইসোলেশন) রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল। তারা ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছিলেন। পরপর দুই দফায় তাঁদের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ আসে। গতকাল বেলা ১১টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জাহিদুল ইসলাম, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মাহামুদুল হাসান।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) রেনু দাস, জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজহারুল ইসলাম সরকারসহ কর্মকর্তারা বাড়িতে গিয়ে তাদের করোনামুক্ত ঘোষণা করেন। তাদের ফুল দিয়ে অভিনন্দন জানানো হয়। ফলমূলসহ উপহারসামগ্রী দেওয়া হয়। বিকেলে শাহ আলম অসুস্থ হয়ে পড়েন। সন্ধ্যা সাতটার দিকে তিনি মারা যান। শাহ আলমের ছেলে বাদল জমাদ্দার বলেন, বৃহস্পতিবার যখন ইউএনও, ওসি, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এসে মা–বাবার করোনা মুক্তির খবর দেন, সবাই খুশি হয়েছিলাম। বাবা খুশি হয়ে বলেছিলেন।

এখন মরেও শান্তি পাব যে করোনা জয় করেছি। আল্লাহ হয়তো বাবার কথাই রেখেছেন, করোনা জয়ের পরই তিনি মৃত্যুবরণ করলেন। করোনা নিয়ে মারা গেলে সারা জীবন আমাদের আক্ষেপ থাকত। রাত ১১টার দিকে পারিবারিক কবরস্থানে বাবাকে দাফন করা হয়। ইউএনও বলেন, উপজেলা সদর থেকে শাহ আলমের বাড়ি অন্তত ১৫ কিলোমিটার দূরে। ওই গ্রামে গিয়ে শাহ আলম ও তার স্ত্রী ফতেজাকে করোনামুক্ত ঘোষণা করা হয়েছিল। ৮-৯ ঘণ্টার ব্যবধানে সেই আনন্দ বেদনায় রূপ নিল। তিনি করোনা জয় করলেও মৃত্যুকে জয় করতে পারলেন না।

Categories
Uncategorized

মাইকে আজান দেয়া যাবে না, রায় দিল ভারতের আদালত

ভারতের বিজেপিশাসিত উত্তর প্রদেশে লাউডস্পিকারে আজান দেওয়া যাবে না। কেবলমাত্র খালি গলাতেই আজান দিতে হবে। আজ (শুক্রবার) আজান সংক্রান্ত একটি জনস্বার্থ মামলার রায়ে উত্তর প্রদেশের এলাহাবাদ হাই কোর্ট ওই নির্দেশ দিয়েছে। যদি কেউ জেলা প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া লাউডস্পিকারের মাধ্যমে আজান দেয়, তাহলে তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার (১৫ মে) এ প্রসঙ্গে এলাহাবাদ হাই কোর্টের বিচারপতি শশীকান্ত গুপ্তা ও বিচারপতি অজিত কুমারের সমন্বিত বেঞ্চ বলেন, ‘আমাদের মতে আজান ইসলামের একটি গুরুত্বপূর্ণ ও অপরিহার্য অঙ্গ। কিন্তু, লাউডস্পিকার ও অন্যান্য যন্ত্রের সাহায্যে আজান দিতে না দেওয়ার বিষয়টি কখনই সংবিধানে বর্ণিত ২৫ নম্বর ধারা লঙ্ঘন করে না। সংবিধানে পরিষ্কার বলা হয়েছে, যতক্ষণ না কারোর সাংবিধানিক অধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে ততক্ষণ অন্য একজন নাগরিক তার ভাল লাগছে না এরকম কিছু শুনতে বাধ্য নন।বরং যদি তাকে ওই কাজ করতে বাধ্য হতে হয় তাহলে তা আইনবিরোধী।’

আদালত বলেছে, শব্দদূষণমুক্ত ঘুমের অধিকার জীবনের মৌলিক অধিকারের অংশ। মানবকণ্ঠে মসজিদ থেকে আজান দেওয়া যায়। কারোরই নিজের মৌলিক অধিকারের জন্য অন্যের মৌলিক অধিকার লঙ্ঘন করার অধিকার নেই। গত এপ্রিল মাসের শেষের দিকে লাউডস্পিকারে আজান ইস্যুতে এলাহাবাদ হাই কোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছিলেন গাজীপুরের বিএসপি নেতা। উত্তরপ্রদেশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে লাউডস্পিকারে আজান দেওয়ার উপরে যে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে তা তুলে নেওয়ার আবেদন করেছিলেন আফজাল আনসারি এমপি। কিন্তু, ওই আবেদন খারিজ করে লাউডস্পিকারে আজান দেওয়া বন্ধ করতে বলছে আদালত।

Categories
Uncategorized

মাইকে আজান দেয়া যাবে না, রায় দিল ভারতের আদালত

ভারতের বিজেপিশাসিত উত্তর প্রদেশে লাউডস্পিকারে আজান দেওয়া যাবে না। কেবলমাত্র খালি গলাতেই আজান দিতে হবে। আজ (শুক্রবার) আজান সংক্রান্ত একটি জনস্বার্থ মামলার রায়ে উত্তর প্রদেশের এলাহাবাদ হাই কোর্ট ওই নির্দেশ দিয়েছে। যদি কেউ জেলা প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া লাউডস্পিকারের মাধ্যমে আজান দেয়, তাহলে তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার (১৫ মে) এ প্রসঙ্গে এলাহাবাদ হাই কোর্টের বিচারপতি শশীকান্ত গুপ্তা ও বিচারপতি অজিত কুমারের সমন্বিত বেঞ্চ বলেন, ‘আমাদের মতে আজান ইসলামের একটি গুরুত্বপূর্ণ ও অপরিহার্য অঙ্গ। কিন্তু, লাউডস্পিকার ও অন্যান্য যন্ত্রের সাহায্যে আজান দিতে না দেওয়ার বিষয়টি কখনই সংবিধানে বর্ণিত ২৫ নম্বর ধারা লঙ্ঘন করে না। সংবিধানে পরিষ্কার বলা হয়েছে, যতক্ষণ না কারোর সাংবিধানিক অধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে ততক্ষণ অন্য একজন নাগরিক তার ভাল লাগছে না এরকম কিছু শুনতে বাধ্য নন।বরং যদি তাকে ওই কাজ করতে বাধ্য হতে হয় তাহলে তা আইনবিরোধী।’

আদালত বলেছে, শব্দদূষণমুক্ত ঘুমের অধিকার জীবনের মৌলিক অধিকারের অংশ। মানবকণ্ঠে মসজিদ থেকে আজান দেওয়া যায়। কারোরই নিজের মৌলিক অধিকারের জন্য অন্যের মৌলিক অধিকার লঙ্ঘন করার অধিকার নেই। গত এপ্রিল মাসের শেষের দিকে লাউডস্পিকারে আজান ইস্যুতে এলাহাবাদ হাই কোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছিলেন গাজীপুরের বিএসপি নেতা। উত্তরপ্রদেশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে লাউডস্পিকারে আজান দেওয়ার উপরে যে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে তা তুলে নেওয়ার আবেদন করেছিলেন আফজাল আনসারি এমপি। কিন্তু, ওই আবেদন খারিজ করে লাউডস্পিকারে আজান দেওয়া বন্ধ করতে বলছে আদালত।