Categories
Uncategorized

থেমে যাননি ফাল্গু’নী’ দুই হাত ছাড়াই জাহা’ঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় পেরিয়ে আজ অনেক বড় অফিসার!

তখন সবে দ্বিতীয় শ্রেণির ছা’ত্রী তিনি। আর দশটি শি’শুর মতোই হেসে-খেলে বেড়ে উঠছিলেন। তবে হঠাৎই নেমে আসে মস্ত বড় একটা বিপদ। সময়টা ২০০২ সাল। পাশের বাড়ির ছাদে বন্ধুদের স’ঙ্গে খেলার সময় বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে তার হাতের কনুই পর্যন্ত পুড়ে যায়।আর্তচি’ৎকার শুনে প্রতিবেশীরা উ’দ্ধার করে তাকে নিয়ে যায় হাস’পা’তালে। দেশের চি’কিৎসায় ভালো না হওয়ায় একসময় কলকাতায় নেয়া হয় তাকে। প্রথমে তো কোনো বেসরকারি হাস’পা’তালও ভর্তি নিতে চায়নি। পরে অনেক ক’ষ্টে কলকাতা মেডিকেল কলেজ ও হাস’পা’তালে ভর্তি করানো হয়। বলছি ফাল্গু’নী সাহার কথা। অনেক চড়াই উতরায় পেরিয়ে আজ তিনি সফল।

পড়াশুনা করছেন জাহা’ঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগে স্নাতকোত্তর পর্বে। গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালীর গলাচিপায়। তার হাত দুটি নেই বললেই চলে। কিন্তু তাতে দমে যাননি ফাল্গু’নী। এখন তিনি একটি বেসরকারি কোম্পানির হিউম্যান রিসোর্স অফিসার। কলকাতা মেডিকেল কলেজ ও হাস’পা’তালে সে যখন ভর্তি হয় তত দিনে তার হাতে পচন ধরে গেছেসেখানকার ডা’ক্তার বলেন, বড্ড দেরি হয়ে গেছে। এভাবে পচতে থাকলে একসময় ক্যান্সার হয়ে যেতে পারে। তাই হাত আর রাখা যাব’ে না। যাই হোক, কনুই থেকে কে’টে ফেলা হলো ফাল্গু’নীর দুই হাত। হাতের ঘা শুকাতে মাস চারেকের মতো লাগল। প্রতিবেশীরা আফসোস করে বলত, মে’য়েটার আর পড়াশোনা হবে না। তবে ফাল্গু’নী দমে যাওয়ার পাত্রী নন।

কাগজ-কলম দেখলে মন খা’রাপ ‘হতো। সহপাঠীদের স্কুলে যেতে দেখলে চোখের কোণে জল আসত। ভাবতেন, ‘পৃথিবীতে কিছুই তো অসম্ভব নয়। তবে আমি কেন পারব না?’ একদিন সাহস করে কলম নিয়ে খাতার ওপর লিখতে চেষ্টা করলেন। এভাবে কিছুদিন প্র্যাকটিস করলেন। পরে একদিন দুই হাতের কনুইয়ের মাঝখানে কলম রেখে লেখার কৌশল আয়ত্তের চেষ্টা করলেন।এ বি’ষয়ে ফাল্গু’নী বলেন, শুরুতে ভীষণ ক’ষ্ট ‘হতো। এলোমেলো হয়ে যেত লাইন। কলম ধরতে ধরতে একসময় হাতে ইনফেকশনও হয়েছিল। ডা’ক্তারও বারণ করেছিলেন এভাবে লিখতে। তবে আমি হার মানিনি। অদম্য ইচ্ছাশক্তির জো’রে একসময় ঠিকই লেখা আয়ত্তে চলে আসে। পরের বছর তৃতীয় শ্রেণিতে ভর্তি হন। গলাচিপা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পঞ্চম শ্রেণিতে বৃত্তি পেলেন।

গলাচিপা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসিতে জিপিএ ৫ পেয়ে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিলেন। ফাল্গু’নীর কথা জানাজানি হলে ঢাকার ট্রাস্ট কলেজের অধ্যক্ষ বশির আহমেদ তাকে ঢাকায় এনে ট্রাস্ট কলেজে ভর্তি করিয়ে দেন। কলেজের হোস্টেলেই থাকতেন। এখান থেকে এইচএসসিতে মানবিকে জিপিএ ৫ পেয়ে ফাল্গু’নী প্রমাণ করলেন, মানুষ চাইলে সবই পারে!পরীক্ষাকেন্দ্রে তার জন্য আলাদা বসার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। দুই কনুইয়ের মধ্যে কলম চেপে ধরে লিখতেন তিনি। এইচএসসি ফলাফলের পর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার কোচিংয়ের সময় ফার্মগেটে ছিলেন কিছুদিন। পরে সূত্রাপুর ও লালবাগে দুই আ’ত্মীয়ের বাসায় থেকেছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগে পড়ার ইচ্ছা ছিল। কিন্তু সে সুযোগ হয়নি।

২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষে জাহা’ঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগে। অনার্সে সিজিপিএ ৩.৫০ পেয়েছেন। এখন সেখানে মাস্টার্সে পড়ছেন। চার বোনের মধ্যে ফাল্গু’নী তৃতীয়। তার বাবা জগদীশচন্দ্র সাহা, মা ভা’রতী সাহা। ছোটখাটো একটি মুদি দোকান ছিলো তার বাবার। তবে তাদের আবার দুর্ভাগ্য নেমে আসে। বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার কয়েক দিন পর বাবাকে হারান ফাল্গু’নী।তখন তিনি সবে বিশ্ববিদ্যালয় জীবন শুরু করেছেন আর তার ছোট বোন নবম শ্রেণির ছা’ত্রী। দুই মে’য়েকে নিয়ে ভা’রতী সাহা যেন অথৈ জলে পড়লেন। মিষ্টির বাক্স বিক্রি করে কোনো মতে সংসার চালাতেন। ছুটিতে বাড়ি গেলে এ কাজে মাকে সাহায্য করতেন ফাল্গু’নী। প্রথম বর্ষে পড়ার সময় সাভারে একটি টিউশনিও পেয়েছিলেন মাসে দেড় হাজার টাকায়। কিন্তু মাস দুয়েকের বেশি চালিয়ে নিতে পারেননি। কারণ অ’ভিভাবকদের ধারণা, আমা’র হাত দুটি নেই।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- নারী ও-পুরুষের সকল প্রকার- জটিল ও গো’পন রোগের চিকিৎসা করা হয়। দেশে ও বিদেশে ওষুধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০ (সময় সকাল ৯ – রাত ১১ )

লিখতেও ক’ষ্ট হয়। তাই আমি পড়াতে পারব না! টিউশনি চলে যাওয়ার পর চরম অর্থক’ষ্টে কাটে কিছুদিন। পরে এলাকার এক বড় ভাইয়ের মাধ্যমে যোগাযোগ হয় ‘মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন’-এর প্রতিষ্ঠাতা আমেরিকা প্রবাসী চন্দ্র নাথের স’ঙ্গে। সেখান থেকে বৃত্তির ব্যবস্থা হলো। এ বি’ষয়ে ফাল্গু’নী বলেন, মানুষ মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন থেকে প্রতি মাসে যা পেতাম তা দিয়ে খরচ মিটে যেত।সত্যি বলতে কী’, ওই সময় বৃত্তি না পেলে হয়তো পড়াশোনায়ও ইস্তফা দিতে ‘হতো। পরিবার, শিক্ষক, বন্ধু-বান্ধবদের কাছ থেকে সব সময় সহযোগিতা পেয়েছি। সবার কাছে কৃতজ্ঞ আমি। তিনি আরো বলেন, পড়াশোনার সময় তো বৃত্তির টাকাতেই চলেছি। কিন্তু মাস্টার্স শেষে কী’ হবে এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় ছিলাম।

এর মধ্যেই গত ১৭ অক্টোবর একটি সুখবর পাই। বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাকে হিউম্যান রিসোর্স অফিসার হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয় আমাকে। আগামী মাসের ৩ তারিখে যোগদান করার কথা।পাহাড়সম বাধা পেরিয়ে এই পর্যায়ে এসে ফাল্গু’নী সাহা বলেন, জীবনে অনেক ক’ষ্ট করে এই অবস্থানে এসেছি।ইচ্ছাশক্তির জো’রে এতো দূর আসা। আমা’র মা অনেক অ’সুস্থ। বসে বসে কাজ করতে গিয়ে তার হাড় ক্ষয়ে গেছে। কিছুদিন আগে ব্রেইন স্ট্রোকও করেছেন। মাকে ভালো ডা’ক্তার দেখাব। ছোট বোন এখন অনার্সে পড়ছে। তাকেও সহযোগিতা করতে দিতে চাই।

Categories
Uncategorized

একটি সামাজিক অনুষ্ঠানে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট’কে পোঁচা ডিম মা’রলেন মু’সলিম যুবক- ভিডিও ভাই’রাল

ইস’লাম ধ’র্ম ও বিশ্বনবী হযরত মোহাম্ম’দ (সা.)কে নিয়ে ব্যা’ঙ্গচি’ত্র প্রদর্শন বন্ধ করা হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ই’মানুয়েল ম্যাক্রোঁ।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- নারী ও-পুরুষের সকল প্রকার- জটিল ও গো’পন রোগের চিকিৎসা করা হয়। দেশে ও বিদেশে ওষুধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০ (সময় সকাল ৯ – রাত ১১ )

এর ই জে’র ধরে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে আজ একটি ভিডিও ভাই’রাল হয়। ভিডিওতে দেখা যায় যে, ক’ঠো’র নি’রাপ’ত্তার মধ্যে কোন একটি সামাজিক অনুষ্ঠানে অনুষ্ঠান চলাবস্থায় তার উপর কে বা কা’রা ডিম নি’ক্ষে’প করে। তবে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এর বিস্তারিত জানা যায়নি। ভিডিওটির নির্ভরযোগ্য কোন সূত্রও ত্যৎক্ষনিকভাবে জানা যায়নি।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- নারী ও-পুরুষের সকল প্রকার- জটিল ও গো’পন রোগের চিকিৎসা করা হয়। দেশে ও বিদেশে ওষুধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০ (সময় সকাল ৯ – রাত ১১ )

উল্লেখ্য, বিশ্বনবীকে নিয়ে একটি বি’তর্কি’ত কা’র্টুন দেখানোর জেরে খু”ন হওয়া ফরাসি শিক্ষক স্যামুয়েল প্যাটিকে সম্মা’ন জানাতে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে সম্প্রতি ম্যাক্রোঁ এ কথা বলেছেন।

এর আগে গত ১৬ অক্টোবর ফ্রান্সের একটি সড়কে শিক্ষক স্যামুয়েল প্যাটিকে হ”ত্যা করেছিল এক ত’রুণ। ওই শিক্ষক ক্লাসে মহানবীর কা’র্টুন দেখিয়ে মতপ্রকাশের স্বাধীনতার ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন। শিক্ষকের ওপ’র হা”ম’লাকা’রী আবদৌলখ নামের ওই ত’রুণ ঘ’টনাস্থলেই পু’লিশের গু”লিতে নি’’হ’ত হয়েছিলেন।

Categories
Uncategorized

মা’এ এক ঘ’ণ্টার জন্য’ উপজে’লা চে’য়ারম্যান হলেন নবম শ্রেণির ছা’ত্রী।

পঞ্চগড় সদর উপজে’লা পরিষদের এক ঘ’ণ্টার জন্য প্র’তীকী’ চে’য়ারম্যানের দায়ি’ত্ব পালন করলেন নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী হাছনে হেনা মন। কন্যাশি’শু দিবস উপলক্ষ্যে নারী ক্ষ’মতায়নের জন্য বে’সরকারি সংস্থা প্লান ইন্টারন্যাশনাল ও ন্যাশনাল চিলড্রেন ট্রা’ন্সফোর্স এই উদ্যোগ নেন।

মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত এক ঘ’ণ্টার জন্য সদর উপজে’লার পরিষদের চেয়ারম্যান আমিরুল ইস’লামের কাছে দায়িত্ব বুঝে নেন ওই স্কুলছা’ত্রী। এই এক ঘণ্টায় পুরো উপজে’লার পরিষদের কার্যক্রম পরিচালিত হয় তার নির্দেশনায়।

সদর উপজে’লার ১০টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভাকে নারীবান্ধব করাসহ, বাল্য বিবাহ ও নারীর প্রতি সহিং’সতা রোধে বিভিন্ন সুপারিশ তুলে ধরেন এক ঘণ্টার এই কি’শোরী চেয়ারম্যান। উপজে’লা পরিষদের চেয়ারম্যানও তার সুপারিশ বাস্তবায়নের আশ্বা’স দেন।

Categories
Uncategorized

সেই চাঁন সরদার দাদা বাড়ি’ যেন রাজপ্রাসাদ

রাজধানীর চকবাজার এলাকার ২৬ দেবীদাস লেন। ‘চাঁন সরদার দাদা বড়ি’ নামে পরিচিত ৯ তলা সেই বাড়ি দেখে মনে হবে যেন রাজপ্রাসাদ। যেখানে থাকতেন সরকারদলীয় এমপি হাজী মো. সেলিমের ছেলে ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইরফান সেলিম। এতদিন এ বাড়িটি নিয়ে মানুষের কৌতূহলের শেষ ছিল না। কারণ নিজস্ব নিরাপত্তায় মোড়ানো বাড়িটিতে সাধারণ কারও সেভাবে ঢোকার সুযোগ ছিল না। বাড়িটির কিছু অংশে ঢুকলেও তাতেও প্রয়োজন হতো ফ্রিঙ্গার প্রিন্টের।

সোমবার অভিযানকালে বাড়িটির ভেতরে ঢুকতেই র‌্যাব কর্মকর্তাদের যেন পিলে চমকানো অবস্থা। এ যেন বাড়ি নয়, রাজপ্রাসাদে অভিযান। বাড়ির নিচতলায় হাজী সেলিমের বাবা-মায়ের ছবি টানানো। নিচতলায় সিঁড়ির পাশেই ফিঙ্গারপ্রিন্ট ডিভাইস বসানো। এখানে ফিঙ্গারের ছাপ দেয়া ছাড়া কাউকে ভেতরে প্রবেশ করতে দেয়া হতো না। সেখান থেকে বাড়ির চতুর্থতলায় ঢুকে র‌্যাব সদস্যদের চোখ ছানাবড়া।

এই ফ্লোরের একটি কক্ষে ঢুকে দেখা মেলে বিশাল একটি কন্ট্রোল রুমের। দেখে মনে হয় যেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কোনো নিয়ন্ত্রণ কক্ষ। কী নেই সেখানে? আশপাশের অন্তত ১০ কিলোমিটার এলাকা তদারকির জন্য ছিল ওয়াকিটকি, মোবাইল ট্র্যাকিং এড়াতে ভিপিএস সেট, নেশার জন্য বিদেশি মদের বোতলের বক্স, গান শুনতে সাউন্ড বক্স, কলের গান, গানের সঙ্গে মিউজিক বাজাতে রয়েছে একটি গিটার।

আশপাশের এলাকা তদারকির জন্য কক্ষের বারান্দায় ছিল অত্যাধুনিক সোনালি রঙের একটি দূরবীন ও সঙ্গে বহনের জন্য একটি ছোট দূরবীন। ছিল ড্রোন ক্যামেরা এবং হ্যান্ডকাফও। তৃতীয় তলার একটি কক্ষের বিছানার ম্যাট্রেস উঠানোর পরই দেখা যায় গুলিভর্তি একটি বিদেশি অবৈধ পিস্তল আর বিভিন্ন পরিচয়পত্র।

সরেজমিন দেখা গেছে, কারুকার্যময় বাড়িটি আধুনিক ও নান্দনিকতার মিশেলে তৈরি। গেটের সামনে মানুষের ভিড়। বাড়িটির নিরাপত্তা ব্যবস্থাও সাধারণ কোনো বাড়ির মতো নয়। প্রযুক্তি যাচাইয়ের পরই ভেতরে প্রবেশ করতে হয়। বাড়ির চতুর্থ ও পঞ্চম তলায় যেখানে অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাব। এই দুই তলায় ওঠার জায়গায় সুরক্ষিত দরজা। পঞ্চম তলার কক্ষটিতে এরফান ও তার স্ত্রীর ছবি রয়েছে।

এ কক্ষে এরফানের দাদার রেখে যাওয়া একটি কাঠের আলমারি রয়েছে। সেখানে এক পাশে ডিজাইন সংবলিত বিভিন্ন পোশাক দেখা গেছে।
ভবন ঘুরে দেখা গেছে, ভবনের মূল সিঁড়ির বাইরে কাঠের আলাদা সিঁড়ি রয়েছে। পঞ্চম তলায় পুরো কক্ষে লাগানো সাদা টাইলস। সেখানে কাঠের আলমারি। সোনালি রঙের নান্দনিক শৈলীর দরজা।

পাশের কক্ষে একটি কালো রঙের ভাস্কর্য দেখা গেছে। ওই কক্ষে একটি কাঠের বাক্সে ৫টি মদের বোতল ছিল। সেখানে কলের গানের সরঞ্জামও দেখা গেছে। পুরো কক্ষ উন্নতমানের লাইট দিয়ে সুসজ্জিত। রয়েছে উন্নতমানের সাউন্ড সিস্টেম। অভিযানে থাকা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, এসব অস্ত্র ও হ্যান্ডকাফের বিষয়ে কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি এরফান সেলিম। আমাদের ধারণা, এগুলো দিয়ে তিনি সাধারণ মানুষকে ভয়ভীতি দেখাতেন।

Categories
Uncategorized

বাংলাদেশের অ’ভিনেত্রী মিথিলা, আমি কোনো হিন্দুকে বিয়ে করিনি একজন মানুষকে বিয়ে করেছি।

কলকাতার জনপ্রিয় পরিচালক ও স্বামী সৃজিত মুখার্জিকে নিয়ে টুইট করেছেন বাংলাদেশের অ’ভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। গত ১১ জানুয়ারি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ টুইট করেন তিনি।

টুইটে মিথিলা বলেন, ‘আমি কোনো হিন্দু অথবা ভা’রতীয় কোনো চলচ্চিত্র পরিচালককে বিয়ে করিনি। আমি সহৃদয় ও বুদ্ধিদীপ্ত একজন মানুষকে বিয়ে করেছি, যার প্রে’মেও আমি পড়েছিলাম। তাই আমি তার সব পরিচয়েই গর্ববোধ করি।’

বিয়ে ও সৃজিতকে নিয়ে কোনো বাজে কথা বললে তা সহ্য করা হবে না বলেও হুশিয়ারি দেন এই অ’ভিনেত্রী। মিথিলা বলেন, ‘যে কেউ আমা’র বিয়ে অথবা আমা’র সঙ্গীকে হী’ন করার চেষ্টা করলে তাকে থা’প্পড় মা’রা হবে।’

এর আগেও সৃজিতকে নিয়ে একাধিক স্ট্যাটাস দিয়েছেন মিথিলা। প্রসঙ্গত, গত ৬ ডিসেম্বর সৃজিত মুখার্জি ও রাফিয়াত রশিদ মিথিলার বিয়ে হয়। এই বিয়ে তাদের দুজনেরই দ্বিতীয় বিয়ে।

বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন সৃজিতের মা ও দিদি, সৃজিতের টলিউডের পরিবার রুদ্রনীল, শ্রীজাত, ইন্দ্রদীপ, যিশু, নীলাঞ্জনা, অনুপম ও পিয়া। এছাড়া মিথিলার পরিবারের সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন।

রেজিস্ট্রি করে বিয়ে হলেও পরে বেশ বড় করে বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে বলে জানা গেছে। জানা গেছে, মিথিলা-সৃজিতের পরিচয় হয় অর্ণবের একটি মিউজিক ভিডিওতে কাজের মাধ্যমে। সেখানে থেকেই বন্ধুত্ব তারপর প্রে’ম।

তবে সৃজিতকে বিয়ের আগে বাংলাদেশের নাট্যনির্মাতা ইফতেখার ফাহমির সঙ্গে বেশকিছু অন্তরঙ্গ ছবি ফেসবুকে ভাই’রাল হয়। এর আগে জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী তাহসানের সঙ্গে মিথিলার বিয়ে হয় ২০০৬ সালের ৩ আগস্ট। তাদের বিবাহবিচ্ছেদ হয় ২০১৭ সালের জুলাই মাসে।

Categories
Uncategorized

সংসদ সদস্যর ছে’লের ঘটনা’য় ক্ষে’পে গিয়ে আইনশৃঙ্খ’লা বা’হিনীকে কো’ঠর নি’র্দেশ দিলেন প্রধানমন্ত্রী

হাজী সেলিমের ছে’লের ঘটনায় আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষু’ব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী এই বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

দলটির একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র এই বিষয়ে নিশ্চিত করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, প্রধানমন্ত্রী এই ঘটনা জানার পর ক্ষু’ব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন এবং যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন। আওয়ামী লীগের একজন শীর্ষ নেতা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেছেন কোন ব্যক্তিই আইনের উর্দ্ধে নয়। অ’প’রাধ করলে যে কারও বি’রু’দ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে’।

আওয়ামী লীগের অন্য আরেকজন নেতা বলেন, ‘হাজী সেলিমের ছে’লে এই ঘটনায় বাড়াবাড়ি করেছে। যদি তার অন্যায় কিছু ঘটে থাকে তার জন্য দেশে আইন আছে, আ’ইনশৃঙ্খ’লা র’ক্ষাকারী বাহিনী আছে, বিচার আছে। কিন্তু আইন নিজের হাতে তুলে নেওয়া এবং নৌবাহিনী কর্মক’র্তার উপর এই ধরণের আ’ক্র’মণের ঘ’টনা অনভিপ্রেত এবং অকল্পনীয়’।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার পরপরই আইন প্রয়োগকারী সংস্থা গাড়ি চালককে আ’ট’ক করেছে এবং মা’মলা দায়ের করেছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, দ্রুতই অন্য আ’সা’মিদের গ্রে’ফতার করা হবে।

Categories
Uncategorized

সতীসাধ্বী রমণী, একজন পুরুষের শ্রেষ্ঠ সম্পদ।

দুনিয়ার শ্রেষ্ঠ সম্পদ সতীসাধ্বী রমণী। বাণীটি অতি ক্ষুদ্র হলেও এর তাৎপর্য ব্যাপক। একজন নারীর সংশ্রব ব্যতিত পুরুষের জীবনের পরিপূর্ণতা আসে না। সুখে-দুঃখে নারীই তার জীবনসঙ্গিনী। সুতরাং দাম্পত্য জীবনে এ নারী যদি পুত-পবিত্র সচ্চরিত্রা হয়, তাহলে জীবন স্বর্গরাজ্যে পরিণত হয়।

সমস্যা সংকুল জীবনেও শান্তির ফল্গুধারা বয়ে যায়। যে শান্তি নারী-পুরুষের বৈবাহিক জীবনের মাধ্যমে শুরু হয়। বিবাহিত জীবনে নেককার স্ত্রীর গুরুত্ব অত্যধিক। তাই ইসলাম স্ত্রীকে দিয়েছে সর্বোত্তম মর্যাদা। বৈবাহিক জীবনে নারী অধিকার সম্পর্কে কুরআন হাদিসের বক্তব্য তুলে ধরা হলো-

নারীর বিয়ে-

ইসলাম পূর্ব যুগে বৈবাহিক সম্পর্ক ছাড়াই মহিলাদেরকে পুরুষের মালিকানাধীন মনে করা হতো এবং একজন পুরুষ যত খুশী বিয়ে করতে পারতো। ইসলাম নারীদের জন্য বিবাহকে বৈধ এবং আবশ্যক করেছেন। এ বিবাহের মাধ্যমে একজন নারীকে একটি সম্মানজনক আসনে সমাসীন করা হয়। আল্লাহ বলেন, ‘আর তোমাদের মধ্যেকার পুরুষ আর মহিলাদের মধ্য থেকে তাদের বিয়ে দিয়ে দাও যারা দাম্পত্য ছাড়া জীবন অতিবাহিত করে।’ (সুরা নূর)

Categories
Uncategorized

৩০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর প’দ থে’কে বরখা’স্ত হলেন ই’রফান

নৌবাহিনীর কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফের উপর উগ্র হামলার ঘটনায় দাপুটে সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের পুত্র ইরফান শিগগিরই কাউন্সিলর পদ থেকে বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। আজ মঙ্গলবার-ই (২৭ অক্টোবর) জারি করা হবে প্রজ্ঞাপন।

ইরফান সেলিম ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৩০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর। গত রবিবার (২৫ অক্টোবর) রাতে এমপি হাজী মো. সেলিমের ‘সংসদ সদস্য’ লেখা গাড়ি থেকে নেমে নৌবাহিনীর এক কর্মকর্তাকে মা’র’ধ’র করা হয়। রাজধানীর কলাবাগান সিগন্যালের পাশে এ ঘটনা ঘটে। ওই রাতে এ ঘটনায় জিডি হলেও সোমবার ভোরে ইরফানসহ সাতজনের বি’রু’দ্ধে মা’ম’লা করা হয়।

এরপর সোমবার দুপুরে ইরফানকে গ্রে’প্তা’র করে র‌্যাব। এদিন পুরান ঢাকার তার বাসায় অভি’যা’নও পরিচালনা করা হয়। অভি’যা’নে ৩৮টি ওয়াকিটকি, পাঁচটি ভিপিএস সেট, অ’স্ত্র’সহ একটি পি’স্ত’ল, একটি এক’নলা ব’ন্দু’ক, একটি ব্রি’ফ’কেস, একটি হ্যা’ন্ডকা’ফ, একটি ড্রোন এবং সাত বো’তল বিদে’শি ম’দ ও বি’য়ার উদ্ধার করা হয়।

বিদেশি ম’দ ও অনুমোদনহীন ওয়াকিটকি রাখায় কাউন্সিলর ইরফান সেলিম ও তার বডিগার্ড মোহাম্মদ জাহিদকে এক বছর করে কা’রা’দ’ণ্ড দেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। রাতেই তাদের কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কা’রা’গা’রে পাঠানো হয়।

অন্যদিকে ইরফান সেলিমের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা এবি সিদ্দিকী দিপুকে গ্রে’প্তা’র করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। ডিএমপির রমনা গোয়েন্দা বিভাগের একটি দল সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে টাঙ্গাইল থেকে তাকে গ্রে’প্তা’র করে।

Categories
Uncategorized

সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের দেখা পায়নি র‌্যা’­ব, ছে’লে গ্রে’ফতার হয়ে কারাগারে।

বাড়িতে এতোকিছু ঘটে গেলেও ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের দেখা পায়নি র‌্যা’­ব। সোমবার (২৬ অক্টোবর) বেলা ১২টা থেকে রাত পর্যন্ত তার বাড়িতে টানা কয়েক ঘণ্টা শ্বা’সরু’দ্ধ অ’ভি’যান চালানো হয়। আগের রাতে

ধানমণ্ডিতে নৌবাহিনীর একজন কর্মক’র্তাকে ‘মা’রধ’রের’ জেরে সোমবার দুপুরে সোয়ারি ঘাটের দেবী দাস লেনে হাজী সেলিমের বাড়িতে অ’ভি’যান চালায় র‌্যা’­ব।

অ’ভি’যানে লাইসেন্সহীন দুটি বিদেশি পি’স্ত’ল, এক রাউন্ড গু”লি, একটি এয়ারগান, ৩৭টি ওয়াকিট’কি, একটি হাতকড়া এবং বিদেশি ম’দ ও বি’য়ার পাওয়ার কথা জানিয়েছেন র‌্যা’­ব কর্মক’র্তারা।

ওই বাসা থেকে ইরফান ও তার দেহর’ক্ষী মোহাম্ম’দ জাহিদকে গ্রে’প্তার করে ম’দ্যপান ও ওয়াকিট’কি ব্যবহারের জন্য এক বছর করে কা’রাদ’ণ্ড দিয়েছে র‌্যা’­বের ভ্রাম্যমাণ আ’দালত। অ’ভি’যান শেষে রাত ৮টা ১০ মিনিটের দিকে ওই বাড়ি থেকে ইরফান ও জাহিদকে বের করেন র‌্যা’­ব সদস্যরা।

এ সময় র‌্যা’­বের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, ইরফান ও জাহিদকে টিকাটুলিতে র‌্যা’­ব-৩ এর কার্যালয়ে নেওয়া হচ্ছে। সেখান থেকে তাদের কা’রাগা’রে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

সারওয়ার আলম এ সময় চকবাজারের আশিক টাওয়ারে ইরফানের ‘নি’র্যা’ত’ন কেন্দ্রের’ সন্ধান পাওয়ার কথা জানান। পুরান ঢাকার চকবাজারের একটি বহুতল ভবনের ছাদের একটি কক্ষ থেকে হা’তক’ড়া, ছো’রাসহ কিছু জিনিস উ’দ্ধারের পর র‌্যা’­ব জানায়, এই কক্ষকে ‘নি’র্যা’ত’ন কেন্দ্র’ হিসেবে ব্যবহার করতেন সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের ছে’লে ইরফান সেলিম।

আর অ’ভি’যানকালে গোটা এলাকা ঘিরে রাখে আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর অসংখ্য সদস্য আর গণমাধ্যমকর্মীরা। গণমাধ্যমে লাইভ প্রচারও হয় র‌্যা’­বের অ’ভিযা’ন। তবে এসব ঘটনা যার বাড়িতে ঘটছে সেই হাজী সেলিমকেই খুঁজে পায়নি র‌্যা’­ব।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, অ’ভিযা’ন শুরুর আগেই তিনি চিকিৎসকের কাছে গেছেন।

র‌্যা’­বের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ জানান, হাজী সেলিম বাড়িতে নেই। অ’ভিযা’নের আগেই তিনি তার স্ত্রী’সহ ডাক্তারখানায় গেছেন বলে জানা গেছে।

তবে কোথায়, কোন চিকিৎসকের কাছে হাজী সেলিম চিকিৎসা নিতে গেছেন, তা জানাতে পারেননি র‌্যা’­বের ওই কর্মক’র্তা। এ ব্যাপারে জানতে হাজী সেলিমের মোবাইলে একাধিকবার ফোন করলেও সাড়া দেননি তিনি।

হাজী সেলিম বর্তমানে ওই এলাকার সংসদ সদস্য। আওয়ামী লীগের ঢাকা মহানগরের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক হাজী সেলিম এর আগেও দুই দফায় পুরান ঢাকার এই এলাকার সংসদ সদস্য ছিলেন। এরমধ্যে ২০১৪ সালে বি’দ্রো’হী হিসেবে প্র’তিদ্ব’ন্দ্বিতা করে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিনকে হারিয়ে দিয়েছিলেন তিনি।

Categories
Uncategorized

ভ্রাম্যমাণ আদালত কারাদণ্ড দেয়ায়, আরও বড় দু:সংবাদ পাচ্ছেন ইরফান সেলিম

ঢাকা : নৌবাহিনীর একজন কর্মকর্তাকে মারধর এবং বাড়ি তল্লাশির পর র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত কারাদণ্ড দেয়ায় কাউন্সিলর পদ থেকে বরখাস্ত হচ্ছেন সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের ছেলে ইরফান সেলিম। ইরফান বরখাস্ত হচ্ছেন বলে স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে জানা গেছে। ইরফান সেলিম ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৩০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর।

বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, ‘দক্ষিণ সিটি করপোরেশন থেকে রিপোর্ট (দণ্ডিত হওয়ার বিষয়ে) পেলে আমরা তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। এটা তো আইনে কাভার করে। তিনি (ইরফান সেলিম) সাময়িক বরখাস্ত হবেন।’
সিনিয়র সচিব বলেন, ‘আইনে (স্থানীয় সরকার সিটি করপোরেশন আইন) বলা হয়েছে, কেউ সাজা প্রাপ্ত হলে তিনি বরখাস্ত হবেন।’

রোববার (২৫ অক্টোবর) রাতে এমপি হাজী মো. সেলিমের ‘সংসদ সদস্য’ লেখা সরকারি গাড়ি থেকে নেমে নৌবাহিনীর এক কর্মকর্তাকে মারধর করা হয়। রাজধানীর কলাবাগান সিগন্যালের পাশে এ ঘটনা ঘটে। রোববার রাতে এ ঘটনায় জিডি হলেও সোমবার ভোরে ইরফানসহ সাতজনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।

এর পর সোমবার (২৭ অক্টোবর) দুপুরে ইরফানকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এদিন পুরান ঢাকার তার বাসায় অভিযানও পরিচালনা করা হয়। অভিযানে ৩৮টি ওয়াকিটকি, পাঁচটি ভিপিএস সেট, অস্ত্রসহ একটি পিস্তল, একটি একনলা বন্দুক, একটি ব্রিফকেস, একটি হ্যান্ডকাফ, একটি ড্রোন এবং সাত বোতল বিদেশি মদ ও বিয়ার উদ্ধার করা হয়।

বাসায় বিদেশি মদ ও অনুমোদনহীন ওয়াকিটকি রাখায় কাউন্সিলর ইরফান সেলিম ও তার বডিগার্ড মোহাম্মদ জাহিদকে এক বছর করে জেল দেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। রাতেই তাদের কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে, ইরফান সেলিমের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা এবি সিদ্দিকী দিপুকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। সোমবার (২৭ অক্টোবর) দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে ডিএমপির রমনা গোয়েন্দা বিভাগের একটি দল টাঙ্গাইল থেকে তাকে গ্রেফতার করে।