Categories
Uncategorized

ভেষজ গুনের এই শাক ক্যান্সার সহ স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী

শাক-সবজি খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। তবে বিশেষ কিছু শাকে উপকারিতার পরিমাণও অনেক বেশি থাকে। এর মধ্যে একটি হলো সরিষা শাক। এই শাক দিয়ে পাকোড়া, ভর্তা বা ভাজি বানিয়ে খাওয়া যায়। এতে প্রচুর পরিমাণে খাদ্য উপাদান রয়েছে। নানা রকম ওষুধি গুণ রয়েছে।

এর শাকে রয়েছে আয়রন, ম্যাঙ্গানিজ, ক্যালসিয়াম, জিঙ্ক, পটাশিয়াম, সেলেনিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, প্রোটিন ও ফাইবারসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান।

ওষুধি এবং অন্যান্য ব্যবহার এ শাক যা আপনার হার্ট ভালো রাখে, রক্তের কোলেস্টেরল কমায় এবং গর্ভবতী মায়েদের সুস্থ শিশু জন্মদানের সম্ভাবনা বাড়ায়।

এই শাকের এমন অনেক অবিশ্বাস্য উপকারিতা রয়েছে যা সম্পর্কে অনেকেই জানেন না। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক সরিষা শাকের উপকারিতা সম্পর্কে-

সরিষা শাকে আছে দুই ধরনের গ্লুকোসিনোলেটস। যা ক্যান্সার প্রতিরোধে শক্তিশালী ভূমিকা পালন করে। গবেষণায় দেখা গেছে, যারা নিয়মিত সরিষা শাক খেয়ে থাকেন তাদের বিভিন্ন রকম ক্যান্সার হবার ঝুঁকি অন্যদের চেয়ে অনেক কম।

এই শাক রক্তে কোলস্টেরলের পরিমাণ কমিয়ে আনে। সেই সঙ্গে কোষ্ঠকাঠিন্য সারাতেও কার্যকর। কেননা এটি হজমশক্তি বাড়াতে সরাসরি কাজ করে থাকে।

সরিষা শাক ভিটামিন এ, সি ও কে’তে পরিপূর্ণ যা শরীরকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। এতে থাকা ভিটামিন সি’তে আছে শক্তিশালী এন্টি অক্সিডেন্ট যা নানা রকম অসুখ থেকে আপনাকে সুরক্ষা দেয়।

ভিটামিন এ ভালো রাখে আপনার দৃষ্টিশক্তি। আর ভিটামিন ‘কে’ দেয় হাড়ের সুরক্ষা এবং মস্তিষ্ককে রাখে দারুণ সচল।

এই শাক আপনার দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এটি আপনার দেহে হার্ট অ্যাটাক, আর্থ্রাইটিস ও ক্রনিক রোগের ঝুঁকি কমিয়ে আনে। এর ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

সরিষা শাকে আছে সালফার সমৃদ্ধ পুষ্টিগুণ ও এন্টিঅক্সিডেন্ট। এটি আপনার দেহে জমে থাকা বিষাক্ত পদার্থ বের করে দিতে সাহায্য করে আর সেই সঙ্গে নানা ক্রনিক রোগের আক্রমণ থেকেও আপনাকে রক্ষা করে।

সরিষা শাকে থাকা পরিষ্কারক উপাদান আপনার দেহে জমে থাকা কার্বন ডাই অক্সাইডের মাত্রা কমিয়ে আনে, দেহের তাপমাত্রার ভারসাম্য রক্ষা করে এবং হজমশক্তি বাড়িয়ে দেহের বিষাক্ত পদার্থগুলো মল-মূত্রের সঙ্গে বেরিয়ে যেতে সাহায্য করে।

সরিষা শাক ত্বক ও চুল ভালো রাখে। সেই সঙ্গে এটি অতি কম ক্যালোরি সম্পন্ন হওয়াতে ওজন কমাতেও সাহায্য করে। এটি শারীরিক দূর্বলতা, রক্তশূন্যতা, ত্বকের শুষ্কতা, চুল পড়া ইত্যাদি সারিয়ে তুলতেও দারুণ কার্যকর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *