Categories
Uncategorized

বাংলাদেশের কৃতি সন্তান ড. সমীর ও ড. সেজুঁতিকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বিল গেটস

বিল গেটস তার ব্লগপোস্টে লিখেছেন বাংলাদেশের কৃতি সন্তান প্রখ্যাত অণুজীব বিজ্ঞানী ড. সমীর কুমার সাহা ও তার মেয়ে ড. সেজুঁতি সাহাকে নিয়ে। করোনা ভাইরাস কিভাবে জিন পরিবর্তন করে তা তারা আবিস্কার করেছেন।

আমরা সবাই জানি করোনা ভাইরাস তার জিন পাল্টায়, এবং এ পর্যন্ত ৯ বার জিন পাল্টেছে এমনটা দাবী বিজ্ঞানীদের । এই জিন পরিবর্তনের ফলে গবেষকরা হিমশিম খাচ্ছে ভ্যাক্সিন আবিস্কার করতে। করোনা কিভাবে জিন পাল্টায় ,কি ধরন, বাংলাদেশের করোনাভাইরাসের জিনোম সিকোয়েন্স (জিন রহস্য) আবিষ্কার করেছে চাইল্ড হেলথ রিসার্চ ফাউন্ডেশন নামের একটি প্রতিষ্ঠান।

বিজ্ঞানী ড. সমীর কুমার সাহা ও তার মেয়ে ড. সেজুঁতি এই জিন রহস্য আবিষ্কারের গবেষণায় নেতৃত্ব দেন। বিল গেটস তাদের স্বাগতম জানিয়েছেন। কথায় আছে হীরা চিনে হীরা ,আর উজবুক চিনে খিরা। বিল গেটস ঠিকই হীরা চিনেছেন। তবে আমরা চিনি না।

বিল গেটসের প্রিয় মানুষ এখন ড. সমীর কুমার সাহা ও তার মেয়ে ড. সেজুঁতি। তারা আমাদের দেশের গর্ব। অনেকে বলবেন, বিশ্বে এর আগেও করোনার জিন আবিস্কার হয়েছে। আমি বলব, বাংলাদেশে তো এই প্রথম । এটা আমাদের জন্য অনেক বড় এচিভমেন্ট। কারন , বাংলাদেশের আবহাওয়া, ন্যাচার আমেরিকা, ইউরোপের মত না। ফলে ভ্যাক্সিন আবিস্কারে বাংলাদেশের জন্য সহজ হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *