Categories
Uncategorized

আমি বরাবরই মেয়েদের ঘৃ’ণা করি

যখন ছোট্ট ছিলাম কিছু খাওয়ার মত দাঁত বা শক্তি দুটোর একটাও ছিলো না তখন আমরা মায়ের স্তন পান করেছি একজন মায়ের আগে তিনি একজন মেয়ে নারী, কারোর বৌ,কারোর বোন,কোনো বাবার রাজকন্যা না আমি নারীবাদী পোস্ট করছি না আমি বরাবরই মেয়েদের ঘৃ’ণা করি কেনো করি জানেন ?

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- নারী ও-পুরুষের সকল প্রকার- জটিল ও গোপন রোগের চিকিৎসা করা হয়। দেশে ও বিদেশে ওষুধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০ (সময় সকাল ৯ – রাত ১১ )

তারা সুন্দর করে রান্না করে নিজেরা পরে খায় আমাদের আগে খাওয়ায় সুন্দরভাবে সাজে কালো মেয়েটিও যৌব’ন অন্ধকারেই বিলিয়ে দেয় নিজের যা সম্বল ছিলো যেটা সংরক্ষিত ছিলো ২২ বা ২৩ বছর ধরে বাসররাতেই সব উজাড় করে দেয় আমি ঘৃণা করি তাঁদের কারণ তারা বিবাহের আগেই বয়ফ্রেন্ড কে ইচ্ছা মর্জি স্পর্শ করতে দেয় স্তন হাতও দিতে দেয়

আমি ঘৃণা করি তাঁদের কেননা তারা গর্ভে রেখে আমার আপনার মত ছেলেকে জন্ম দেয় ১০মাস ১০ দিন রাখে ভার্চুয়ালে আমার কাছে এমন এমন মেয়ে আসে যারা বয়ফ্রেন্ড নামক প্রতারকের শিকার যা বলার ভাষা নেই আমার

অনেক আইডিও দেখি এমন কি পেইজও নজরে আসে সবটা বলতে গেলে হয়তো লম্বা চড়া পোস্ট হয়ে যাবে আমি নারীদের সত্যিই ঘৃণা করি কারণ তারা প্রত্যেকে জান্নাতের মালিক আর সেই জান্নাতের মালিকা আমাদের পায়ে পড়ে অনুনয় করে বাঁচতে চায়

স্বামীর পায়ের নিচে বেহশত মানে তারা আরে ভাই পরের বোনও তো আপনার আমার বোনের মতই বোন জান্নাতের মালিকাকে সম্মান দিচ্ছেন না মুনাজাতে জান্নাত খুজা ছাড়ুন ভাই বেকার পাবেন না

যাই হউক ছোট্ট একটা গল্প বলি

একবার আমি সদর ঘাটে গিয়েছিলাম রাত্রে ১২টা তো হবে কিছু বন্ধু বান্ধবসহ জী আপনি ভাবতে পারেন আমি হয়তো দেহলোভী সমস্যা নেই তো কি হলো সেখানে গেলাম ৪জন হবে আমরা একজন সুন্দর মেয়ে এলো বললো বাবু রেট হচ্ছে ৫০০টাকা ফুল নাইট আর দুই চার ঘন্টা দুই বা তিনশো দিলে হবে ৩জন ই রাজি হলো আমি ছাড়া আমি বললাম আপনার সাথে কি এক মিনিট কথা বলা যাবে???

উত্তরে বোনটি বললো জী কিন্তু বুঝেছি টাকা দিতে হবে তাই তো ঠিক আছে আমি ১ হাজার টাকা দিবো কিন্তু কথা বলতে হবে বেশি না ৩০ মিনিট হাহাহাহা হিহিহি করে হাঁসলো বিশ্বাস করবেন না হাঁসিটা অনেক সুন্দর ছিলো

আচ্ছা বাবু বলেন কি বলবেন জেনে রাখা ভালো টেবিল আর চেয়ারের বন্ধবাস্ত ছিলো আচ্ছা আপনি এই কাজটাই কেনো বেঁচে নিলেন?এত কাজ কর্ম পেশা থাকতে??? ভবিষ্যত সম্পর্ককে কিছু জানতে চা???+ অন্য পেশাও তো আছে তার জবাব

আমার সুন্দর একটা স্বপ্ন ছিলো একজনের ঘরনি হবো যাকে ভালোবাসতাম সে আর আমি থাকবো বাচ্চা হবে আরও কত কি তারপর তারপর আর কি বাবু গ্রাম হতে ঢাকায় নিয়ে এলো কেনো????

বাড়িতে বিয়ে ঠিক করেছিলো দুুজন দুজনকে ভালোবাসি তাই পালিয়ে এসেছি তারপর রাতে একসাথে শুইলায় শারীরিক সম্পর্ক হলো ইংরেজিতে কি বলে রুম টিড আমি বললাম Room Date

ঐ আর কি লাইট জ্বালা ছিলো একটা ক্যামেরা ছিলো ভিডিও বানাইছে টের পেয়েও পাইনি সহজ সরল পেয়ে সর্বনাশ করলো আমার তারপর হুমকি টুমকি দিয়ে এই সদর ঘাটে এনে বেঁছে দিছে প্রথম কয় একদিন শারীরিক সমস্যায় পড়েছি এখন আর লাগে না

ভবিষ্যতের কথা কি আর বলমু বলেন আমার দেহের বিনিময়ে যদি কোনো বোন বাচে তাহলে হয়তো বিফলে যাচ্ছে না দেহটা তারপরও চাইবো যেনো আমার মত খপ্পড়ে কেউ না পড়ে ধর্ষণ থামার যেনো আমরা পতিতা কারণ হই

(কিছু বলার ভাষা পাইনি হাতে টাকা গুজে দিলাম তিনি নিতে নারাজ বললো কাম করে নিই তাছাড়া না আমি বললাম বোন এটা তোমার ভাইয়ের তরফ থেকে আমায় তোমার ভাই ভাবতে পারো ভাইয়া আমায় এখান থেকে নিয়ে যাবেন??????

আমি চুপ

তিনি আবার বললেন

জানি সম্ভব না

মজাক করলাম

আমি জোড় করতেই তিনি টাকা নিলেন আর বললেন ধন্যবাদ)

আমি বন্ধুদের ছেড়েই হাঁটতে লাগলাম

আমার বন্ধুরা ভদ্র পরিবারের সন্তান

সেদিন আরও বুঝেছি কতোটা

আসাটা হঠাৎ রাস্তায় সব বলছে তারপর দ্বিমত রেখেও

আপনি ভাবতে পারেন কেনো জেনে শুনেও এসেছি

আমি গিয়ে ছিলাম কাউকে যদি পাই গল্প শুনবো

ব্লাক খাই তাছাড়া অন্য সব সিগারেটে এর্লাজি আছে আমার

টানতে লাগলাম
মুঠোফোনে
একটা গান ছেড়ে দিয়ে হাঁটতে লাগলাম

ভাবলাম অনুনয়টা আবার

ভাইয়া আমাকে এখান থেকে নিয়ে যাবেন???????????

কান্নায় চোখ হতে একফোটা অশ্রু টুপ করে পড়লো

সত্যিই বাস্তবতা কত কঠিন

জান্নাত কে পুরুষ নামের কিছু হিজরা বিক্রি করছে

আর কিছু মহাপুরুষ

ভদ্র ঘরের ভদ্র সন্তান ক্রয় করছে

আবার একটা সিগারেট লাগালাম

আবার একটা

ভাঁবতেই পারছি না কাঁকে খারাপ বলবো

সহজ সরল মেয়েটা নাকি মুখো’শধারি ধ’র্ষক প্রেমিক কে

নাকি নিজেকে যে কিছুই করতে পারলাম না

আধও কি কিছুই করার নেই

আবার একটা সিগারেটে টান দিলাম

আমি কাঁদি না
তবে ভালো করে লক্ষ্য করে দেখলাম অশ্রু ফোটা বেয়ে পড়ছে

বোন দোয়া করিস যেনো কোনোদিন বড় ব্যক্তির মধ্যে অন্যতম হই

মুখের কথা নয় কাজে প্রমাণ করবো সমাজটা তোমাদের জন্যই সুশীল

কারণ দিনের সুশীলরাই রাতে অ’শ্লীল কর্ম কান্ড করে
জায়গা করে দিবো প্রতিষ্ঠিত হবার
হয়তো অসম্ভব কিন্তু আমি বিশ্বাস করি না

মাফ করিস বোন

এই দেশের দোষ নেই তোর ভাইগুলো জীবিত নেই

থাকলেও আমার মত নিরুপায়

মাফ করে দিস

দোয়া করিস সুদিন যেনো আসে

জুন- ২৩- ২০১৯

পৃষ্টা ৫৫০

ডায়রি – অন্ধকারের প্রত্যাশা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *