Categories
Uncategorized

এবার ভারতের জমি দখল করে নিলো বাংলাদেশের বিজিপি

চীনের সঙ্গে ভারতের উত্তে’জনার মধ্যে বাংলাদেশকে নিয়ে সংবাদ প্রচারে ‘খয়রাতি’ শব্দের ব্যবহারে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়। তী’ব্র প্রতিবাদের মুখে দেশটির প্রভাবশালী বাংলা দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা বাংলাদেশিদের উদ্দেশ্যে ক্ষমাও চায়।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- নারী ও-পুরুষের সকল প্রকার- জটিল ও গোপন রোগের চিকিৎসা করা হয়। দেশে ও বিদেশে ওষুধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০ (সময় সকাল ৯ – রাত ১১ )

এই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও বাংলাদেশকে নিয়ে মিথ্যাচার করছে পত্রিকাটি। এবার তারা সীমান্তে বাংলাদেশিদের ও দেশের সীমান্তর’ক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) নিয়ে অপপ্রচারমূলক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

পশ্চিমবঙ্গ থেকে প্রকাশিত পত্রিটকাটি সোমবার (৭ জুলাই) ‘অরক্ষিত জমিতে পা পড়ছে বাংলাদেশির’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। প্রতিবেদনটি বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী রানি নগর প্রতিনিধি সুজাউদ্দীন বিশ্বাসের পাঠানো। প্রতিবেদনে অভিযোগ করা হয়েছে, ভারতের মুর্শিদাবাদের ডোমকল মহকুমার সীমান্তে কয়েক হাজার একর জমি বিজিবির সহায়তায় বাংলাদেশিরা দখল করছে।

আনন্দবাজার তাদের প্রতিবেদনে লিখেছে, ভারতীয় সীমান্ত র’ক্ষী বাহিনী বিএসএফ নাকি স্থানীয় আবাদী (কৃষক) মানুষদের চাষাবাদ করতে না দেয়ায় বাংলাদেশিরা বিনা বাধায় জমি দ’খল করে চলেছে। তাদের অভিযোগ ভারতীয় চাষীদের ওই জমিতে চাষ করাই লাটে উঠেছে। অনেক সময়ে মাঠ থেকে ভারতীয় চাষীদের তুলে নিয়ে গিয়ে বিজিবি নাকি আ’টকে রাখছে।

প্রতিবেদনে স্থানীয় গ্রামবাসীর উদ্ধৃতির নামে বিজিবির বিরু’দ্ধে বিষেদগার করা হয়েছে। তারা এক গ্রামবাসীর বক্তব্যের মাধ্যমে লিখেছে, পদ্মায় মাছ ধরার ক্ষেত্রেও বাধা দিচ্ছে বিজিবি। এছাড়া মুর্শিদাবাদের জলঙ্গির ইরফান আলি নামক এক স্থানীয় গ্রামবাসী বক্তব্য হিসেবে উল্লেখ করেছে, ‘বিজিবি সব সময়ে বাংলাদেশি গ্রামবাসীদের পাশে থাকে। ঠিক উল্টো ব্যবহারটা করে বিএসএফ, আমরাই যেন অনুপ্রবেশকারী!’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *