Categories
Uncategorized

এবার ৩ বি’এসএফকে পি’টি’য়ে হা’সপাতালে পাঠা’লো বাংলাদেশিরা

বাংলাদেশি পা’চারকা’রীদের আ’ক্র’মণে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) তিন সদস্য জখ’ম হয়েছে। শনিবার পশ্চিমবঙ্গের বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে এই ঘটনা ঘটেছে বলে দেশটির কর্মকর্তার বরাত দিয়ে খবর প্রকাশ করে এনডিটিভি।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- নারী ও-পুরুষের সকল প্রকার- জটিল ও গোপন রোগের চিকিৎসা করা হয়। দেশে ও বিদেশে ওষুধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০ (সময় সকাল ৯ – রাত ১১ )

কর্মকর্তারা জানান, উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বিএসএফের বাশঘাটা পোস্টের কাছে জুলাইয়ের ৩-৪ তারিখ রাতে এ ঘটনা ঘটে।এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাত আনুমানিক সাড়ে তিনটা নাগাদ বাংলাদেশি পা’চারকা’রীদের ১০-১২ জনের একটি দলের দেখা পেলে বিএসএফের ১০৭ ব্যাটালিয়নের সেনারা তাদের চ্যালেঞ্জ জানায়।

অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল জুন মাসের সঙ্গে সমন্বয়: সচিব
বিদ্যুৎ বিল অতিরিক্তি করার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ২৯০ কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ সচিব ড. সুলতান আহমেদ। অতিরিক্ত বিল জুন মাসের সঙ্গে সমন্বয় করা হবে বলেও জানান সচিব।

রবিবার দুপুরে এক ভার্চুয়াল সভায় তিনি এ কথা বলেন। ড. সুলতান আহমেদ বলেন, কোনো গ্রাহক ক্ষতিগ্রস্ত হবে না। কাউকেই ব্যবহারের অতিরিক্ত বিল পরিশোধ করতে হবে না। যেসব অভিযোগ এসেছে, তাদের বিল সমন্বয় করা হচ্ছে। আরও অভিযোগ এলে সেগুলোও সমন্বয় করা হবে।

যাদের কারণ দর্শানোরা নোটিশ দেয়া হয়েছে, তাদের সবার বিষয়ে তদন্ত হবে। কোনো গাফিলতি পাওয়া গেলে চাকরি বিধি অনুযায়ী বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এ ধরনের ভুল যাতে না হয়, সে জন্য শতভাগ মিটার দেখে বিল করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলেও জানান বিদ্যুৎ সচিব।জুনের মধ্যে বিল পরিশোধের ক্ষেত্রে মাসুল ছাড়া বিল দেয়ায় ছাড় দেয়া হয়েছিল তা বাড়ানোর চিন্তাও করা হচ্ছে। তবে সেটি শুধুই আবাসিকের ক্ষেত্রে দেয়া হতে পারে বলে সচিব জানান।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, সব মিলিয়ে ৬২ হাজার ৯৬ বিলে অসঙ্গতি পেয়েছেন তারা। এর মধ্যে পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের (আরইবি) দুই কোটি ৯০ লাখ গ্রাহকের মধ্যে ৩৪ হাজার ৬১১ জনের অতিরিক্ত বিল করা হয়েছে। একইভাবে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির ৯ লাখ ২৬ হাজার ৬৮৯ গ্রাহকের মধ্যে ১৫ হাজার ২৬৬ জন,

ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানির (ডেসকো) ১০ লাখ গ্রাহকের মধ্যে ৫ হাজার ৬৫৭ জন, নর্দান ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানির (নেসকো) ১৫ লাখ ৪৮ হাজার গ্রাহকের মধ্যে ২ হাজার ৫২৪ জন, ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (ওজোপাডিকো) ১২ লাখ ১৩ হাজার গ্রাহকের মধ্যে ৫৫৬ জন, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) ৩২ লাখ ১৮ হাজার ৫১৫ জনের মধ্যে ২ হাজার ৫৮২ গ্রাহক অতিরিক্ত বিলের শিকার হয়েছে।

অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিলের জন্য গ্রাহকের কাছে দুঃখ প্রকাশ করে ড. সুলতান আহমেদ বলেন, আমরা সবসময়ই গ্রাহকবান্ধব। আমরা যে আস্থা হারিয়েছি আশা করছি তা শিগগিরই পুনরুদ্ধার করতে পারব। ভবিষ্যতে বিতরণ কোম্পানিগুলো এ ধরনের সংকট সমাধানে শতভাগ মিটার রিডিং নিয়ে বিল করবে। করোনার মধ্যে আমাদের মিটাররিডাররা বাড়ি বাড়ি গিয়ে মিটার রিডিং করতে পারেনি। এ জন্য এই সমস্যা তৈরি হয়েছে। করোনার মধ্যে ৬০১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এ রমধ্যে ১২ জন বিদ্যুৎ কর্মী মারা গেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে ডিপিডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকাশ দেওয়ান বলেন, ‘আমাদের কাছে ৪ হাজার ৩৩০টি বিলের অভিযোগ এসেছিল। কিন্তু আমরা নিজস্ব অনুসন্ধানে দেখেছি ১৫ হাজার গ্রাহকের অতিরিক্ত বিল করা হয়েছে। তাদের সবার বিল সমন্বয় করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *