Categories
Uncategorized

আরব আমিরাতসহ মধ্যপ্রাচ্যে অস্থিতিশীল : জাতিসংঘের সহযোগিতা চায় বাংলাদেশ।

আরব আমিরাতসহ মধ্যপ্রাচ্যে অস্থিতিশীল বাংলাদেশের শ্রমবাজার : জাতিসং’ঘের সহযোগিতা চায় বাংলাদেশ মধ্যপ্রাচ্যে অস্থিতিশীল বাংলাদেশের শ্রমবাজার। করো’না সংক্রমণকালে নতুন শ্রমিক নিচ্ছে না দেশগু’লো। বরং এসব দেশে থাকা বাংলাদেশী শ্রমিকদের ফেরত পাঠানো হচ্ছে। এ অবস্থায় ফেরত আসা

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- নারী ও-পুরুষের সকল প্রকার- জটিল ও গোপন রোগের চিকিৎসা করা হয়। দেশে ও বিদেশে ওষুধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০ (সময় সকাল ৯ – রাত ১১ )

শ্রমিকদের জন্য জাতিসং’ঘের কাছে সহযোগিতা চাইল বাংলাদেশ। গতকাল রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন যমুনায় জাতিসং’ঘ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। জাতিসং’ঘের পক্ষ থেকে আবাসিক সমন্বয়কারী মিয়া সেপ্পোর নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের প্রতিনিধি দল পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের

স”ঙ্গে বৈঠক করে। এ সময় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। করো’না মোকাবেলার জন্য বাংলাদেশ ও জাতিসং’ঘের মধ্যে দৃঢ় অংশীদারিত্বের ওপর জোর দিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী করো’না সংক্রমণের কারণে বাংলাদেশের অর্থনীতির প্রধান অবলম্বন বৈদেশিক কর্মসংস্থান ও তৈরি পোশাক খাতে

নেতিবাচক প্রভাব নিয়ে বৈঠকে উদ্বেগ প্রকাশ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। ফিরে আসতে থাকা প্রবাসী শ্রমিকদের নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি তাদের পুনর্দক্ষতা বৃ’দ্ধি, পুনঃকর্মসংস্থান এবং পুনঃসমন্বয়ের জন্য জাতিসং’ঘের সহযোগিতা চান। এছাড়া বাংলাদেশের বিশাল জনগোষ্ঠীর

বিবেচনায় জাতিসং’ঘের প্রতিক্রিয়া ও পুনরু’দ্ধার তহবিল থেকে যথেষ্ট বরাদ্দ পাওয়া উচিত বলেও আশা প্রকাশ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বৈঠকে রোহি”ঙ্গাদের বি’ষয়ে সহযোগিতার জন্য জাতিসং’ঘকে ধন্যবাদ জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘প্রত্যাব’াসন প্রক্রিয়ায় কোনো অগ্রগতি না হওয়ায় রোহি”ঙ্গারা সমুদ্রে ও স্থলপথে বিপত্সংকুল যাত্রা করছে,যার পরিণতি হচ্ছে ভ’য়াবহ।’

তিনি রাখাইনে প্রত্যাব’াসন সহায়ক পরিবেশ সৃষ্টির জন্য মিয়ানমা’রের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে জাতিসং’ঘের প্রতি আহ্বান জানান। এছাড়া পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশের ঝুঁকি ও উন্নত দেশগু’লোর দায়িত্বের বি’ষয়টি বৈঠকে উল্লেখ করেন। আবাসিক প্রতিনিধি মিয়া সেপ্পো বলেন, ‘কভিড-১৯ এর আর্থসামাজিক ধাক্কা কাটিয়ে ওঠার জন্য জাতিসং’ঘ বাংলাদেশকে সার্বিক সহায়তা দেবে।’

রোহি”ঙ্গা বি’ষয়ে মিয়ানমা’রের স”ঙ্গে আরো গঠনমূলক কাজ করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন মিয়া সেপ্পো। এছাড়া জলবায়ু অ’ভিযোজনে বিশ্বের বাংলাদেশের কাছ থেকে অনেক কিছু শেখার রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।মধ্যপ্রাচ্যে অস্থিতিশীল বাংলাদেশের শ্রমবাজার। করো’না সংক্রমণকালে নতুন শ্রমিক নিচ্ছে না দেশগু’লো।

বরং এসব দেশে থাকা বাংলাদেশী শ্রমিকদের ফেরত পাঠানো হচ্ছে। এ অবস্থায় ফেরত আসা শ্রমিকদের জন্য জাতিসং’ঘের কাছে সহযোগিতা চাইল বাংলাদেশ।

গতকাল রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন যমুনায় জাতিসং’ঘ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। জাতিসং’ঘের পক্ষ থেকে আবাসিক সমন্বয়কারী মিয়া সেপ্পোর নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের প্রতিনিধি দল পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের

স”ঙ্গে বৈঠক করে। এ সময় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। করো’না মোকাবেলার জন্য বাংলাদেশ ও জাতিসং’ঘের মধ্যে দৃঢ় অংশীদারিত্বের ওপর জোর দিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

করো’না সংক্রমণের কারণে বাংলাদেশের অর্থনীতির প্রধান অবলম্বন বৈদেশিক কর্মসংস্থান ও তৈরি পোশাক খাতে নেতিবাচক প্রভাব নিয়ে বৈঠকে উদ্বেগ প্রকাশ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

ফিরে আসতে থাকা প্রবাসী শ্রমিকদের নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি তাদের পুনর্দক্ষতা বৃ’দ্ধি, পুনঃকর্মসংস্থান এবং পুনঃসমন্বয়ের জন্য জাতিসং’ঘের সহযোগিতা চান। এছাড়া বাংলাদেশের বিশাল জনগোষ্ঠীর বিবেচনায় জাতিসং’ঘের প্রতিক্রিয়া

ও পুনরু’দ্ধার তহবিল থেকে যথেষ্ট বরাদ্দ পাওয়া উচিত বলেও আশা প্রকাশ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বৈঠকে রোহি”ঙ্গাদের বি’ষয়ে সহযোগিতার জন্য জাতিসং’ঘকে ধন্যবাদ জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘প্রত্যাব’াসন প্রক্রিয়ায় কোনো অগ্রগতি না হওয়ায় রোহি”ঙ্গারা

সমুদ্রে ও স্থলপথে বিপত্সংকুল যাত্রা করছে,যার পরিণতি হচ্ছে ভ’য়াবহ।’ তিনি রাখাইনে প্রত্যাব’াসন সহায়ক পরিবেশ সৃষ্টির জন্য মিয়ানমা’রের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে জাতিসং’ঘের প্রতি আহ্বান জানান। এছাড়া পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশের ঝুঁকি ও উন্নত দেশগু’লোর দায়িত্বের বি’ষয়টি বৈঠকে উল্লেখ করেন।

আবাসিক প্রতিনিধি মিয়া সেপ্পো বলেন, ‘কভিড-১৯ এর আর্থসামাজিক ধাক্কা কাটিয়ে ওঠার জন্য জাতিসং’ঘ বাংলাদেশকে সার্বিক সহায়তা দেবে।’ রোহি”ঙ্গা বি’ষয়ে মিয়ানমা’রের স”ঙ্গে আরো গঠনমূলক কাজ করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন মিয়া সেপ্পো। এছাড়া জলবায়ু অ’ভিযোজনে বিশ্বের বাংলাদেশের কাছ থেকে অনেক কিছু শেখার রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *