Categories
Uncategorized

সীমান্তে শত শত অ’স্ত্রসজ্জিত গাড়ি পাঠিয়েছে চীন

লাদাখের গলওয়ান উপত্যকায় সং’ঘর্ষের পর ভারত ও চীনের মধ্যকার উ’ত্তেজনা ধীরে ধীরে কমতে শুরু করেছে। উ’ত্তেজনা নিরসনে ও সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার আগামীকাল শুক্রবার (১৯ জুন) সর্বদলীয় বৈঠক ডেকেছে। এদিকে, ২০ জন ভারতীয় সেনার মৃ’ত্যুর ৪০ ঘণ্টা পর মুখ খুললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেছেন, ‘ভারত শা’ন্তি চায়।’ কিন্তু লাদাখ সীমান্তে এবার শত শত সামরিক গাড়ি মোতায়েন করেছে চীন।

সীমান্তে র’ক্তক্ষয়ী সং’ঘর্ষের আগেই গোলাবারুদ ও সেনাবোঝাই এসব গাড়ি লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল সীমানার কাছে গালওয়ান নদী উপত্যকায় আনা হয়। স্যাটেলাইট চিত্রে স’শস্ত্র সামরিক গাড়ি মোতায়েনের এসব দৃশ্য উঠে এসেছে। সোমবার (১৫ জুন) রাতে এ গালওয়ান ভেলিতেই দু’পক্ষের মধ্যে ভয়াবহ সং’ঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ভারতের ২৩ জওয়ান নিহত হন। ভারতীয় সেনাবাহিনীর মতে, চীনা সেনাবাহিনীরও অন্তত ৪৫ জন নিহত হন।

চীন দাবি করেছে, ভারতীয় সেনারা প্রথমে এলএসি সীমানা ল’ঙ্ঘন করেছিল। কিন্তু ভারতীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সং’ঘর্ষ নিয়ে মিথ্যা বলছে বেইজিং। প্রমাণ হিসেবে স্যাটেলাইটের ইমেজকে উপস্থাপন করছেন তারা। সং’ঘর্ষের আগে ও পরে পুরো উপত্যকার সব ছবিই প্লানেট ল্যাবের স্যাটেলাইট ইমেজে ধরা পড়েছে। মঙ্গলবার সং’ঘর্ষস্থলের স্যাটেলাইট ছবি প্রকাশ করা হয়।

ধারণ করা ওই ছবিতে দেখা যাচ্ছে, ভারতের গালওয়ান নদী উপত্যকা বরাবর সারি সারি মোতায়েন করা চীনা সেনাবাহিনীর (পিএলএ) বেশ কয়েকটি সামরিক ট্রাক। ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, সং’ঘর্ষের আগে অন্তত ২শ সশস্ত্র গাড়ি মোতায়েন করা হয়। এছাড়া বেশ কয়েকটি সেনা তাঁবুও টানানো হয়। সং’ঘর্ষের পরও উপত্যকা থেকে এগুলো সরানো হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *