Categories
Uncategorized

২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত প্রায় ১০ হাজার, ভারতে ৩৫৭ জনের মৃত্যু

প্রতিবেশী দেশ ভারতে একদিনে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে সংক্রমণ এবং মৃত্যুর রেকর্ড হয়েছে। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন অন্তত ৩৫৭ জন এবং সংক্রমিত হয়েছেন ৯ হাজার ৯৯৬ জন। যা এখন পর্যন্ত দক্ষিণ এশিয়ার এই দেশটিতে একদিনে করোনায় সংক্রমণ এবং মৃত্যুর সর্বোচ্চ রেকর্ড। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি বলছে, এ নিয়ে ভারতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৮০ হাজারের কাছাকাছি পৌঁছেছে।

দেশটিতে টানা গত ৯ দিন ধরে ২৪ ঘণ্টায় ৯ হাজারের বেশি করে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ভারতের অবস্থান এখন পঞ্চম। দেশটির সরকার বলছে, মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত ভারতে ৫০ লাখের বেশি মানুষের কোভিড-১৯ পরীক্ষা করা হয়েছে। বুধবার একদিনে রেকর্ড ১ লাখ ৫১ হাজার ৮০৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়।

বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ভারতে করোনায় মারা গেছেন ৮ হাজার ১০২ জন। তবে মৃতদের অধিকাংশই দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় মহারাষ্ট্র প্রদেশের বাসিন্দা। মহারাষ্ট্রে করোনায় মারা গেছেন ৩ হাজার ৪৮৩ জন। দেশটিতে করোনাভাইরাসের হটস্পটে পরিণত হয়েছে ভারতের বাণিজ্যিক রাজধানীখ্যাত মহারাষ্ট্রের মুম্বাই।

বুধবার করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় এই ভাইরাসটির উৎস চীনের হুবেই প্রদেশের উহানকে ছাড়িয়ে গেছে মহারাষ্ট্র। ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৩ হাজার ২৫৪ জন নিয়ে এই রাজ্যে করোনা আক্রান্ত পেরিয়েছে ৯৪ হাজার। এরমধ্যে মুম্বাইয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫২ হাজার ৬৬৭ এবং মারা গেছেন ১ হাজার ৮৫৭ জন।

এই রাজ্যে করোনাভাইরাসের কমিউনিটি সংক্রমণ শুরু হয়েছে বলে বিশেষজ্ঞরা দাবি করলেও মহারাষ্ট্রের উদ্ধব ঠাকরে নেতৃত্বাধীন সরকার তা অস্বীকার করেছে। ভারতে তৃতীয় সর্বোচ্চ করোনা সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়েছে রাজধানী নয়াদিল্লিতে। দেশটির কেন্দ্রীয় সরকারের শীর্ষ এক কর্মকর্তা বলেছেন, দিল্লিতেও এই ভাইরাসটির কমিউনিটি সংক্রমণ শুরু হয়নি।

ভারতে করোনায় আক্রান্ত ২ লাখ ৮০ হাজারের কাছাকাছি পৌঁছালেও ইতোমধ্যে দেশটিতে সুস্থ হয়ে উঠেছেন প্রায় অর্ধেক রোগী। এখন পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্তদের মধ্যে ১ লাখ ৪১ হাজার ২৯ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এদিকে, বিশ্বের বিভিন্ন দেশ করোনার লাগাম টানতে লকডাউন ও অন্যান্য বিধি-নিষেধ আরোপ করলেও বর্তমানে তা তুলে নিতে শুরু করেছে। এরমধ্যে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৭৪ লাখ ছাড়িয়েছে এবং মারা গেছেন ৪ লাখ ১৯ হাজারের বেশি মানুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *